২০১৪ এর টেট পাশেদের আন্দোলনকে ঘিরে ধুন্ধুমার! তাদের দাবী কি গ্রহণযোগ্য?

নতুন নিয়োগের কথা ঘোষণা করলেও প্রাথমিক শিক্ষা নিয়ে জটিলতার শেষ নেই। ফলে টেট আন্দোলনকারীরাও নিজেদের দাবিতে অনড়। তাঁরা সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের অভিযোগ তুলেছেন। এমনকি স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী তাঁর দেওয়া কথা রাখছেন না বলে দাবি ২০১৪ এর টেট পাশ আন্দোলনকারীদের। সেই দাবি আদায়ের লক্ষ্যেই সোমবার প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অফিস আচার্য সদন অভিযান করে তারা। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার বেঁধে যায় সল্টলেকে।

2014 TET Pass Candidates movement is in a frenzy

২০১৪ টেট পাশদের দাবি কী?

২০১৪ এর টেট পাশদের দুটো ধাপে নিয়োগ করা হয়েছে। এইভাবে রাজ্যের সরকারি ও সরকার পোষিত প্রাথমিক স্কুলগুলিতে প্রায় ৫৮ হাজার শিক্ষক নিয়োগ হয়েছেন। কিন্তু এই নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ তুলে ২০১৪ এর টেট পাশদের দাবি তাঁদের সকলকে চাকরিতে নিয়োগ দিতে হবে।

এই দাবিতে ২০১৪ এর টেট উত্তীর্ণরা দীর্ঘদিন ধরেই আন্দোলন করছেন। ২০২০ সালে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাংবাদিক বৈঠক করে তাঁদের সকলকে নিয়োগ করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন বলে দাবি করেছেন আন্দোলনকারীরা। কিন্তু দু’বছর পেরিয়ে গেলেও সেই প্রতিশ্রুতি পালন করা হয়নি বলে অভিযোগ। এদিকে গত ২৯ সেপ্টেম্বর প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ নতুন করে প্রায় ১১ হাজার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করে। তাতে বলা হয়, ২০১৪ এর পাশাপাশি ২০১৭ এর টেট উত্তীর্ণরা‌ও আবেদন করতে পারবেন।

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের এই সিদ্ধান্তেই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছেন ২০১৪ এর টেট পাল্লা। তাঁদের দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি মতো আগে তাঁদের মধ্য থেকে নিয়োগ দিতে হবে। এই আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, পর্ষদ প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে ২০১৭ এর টেট পাশদের‌ও চাকরির জন্য আবেদনের সুযোগ দেওয়ায় তাদের সুযোগ কমে গিয়েছে।

এই নিয়ে প্রতিকার চেয়েই সোমবার প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অফিস অভিযানের ডাক দেওয়া হয়। হাজার হাজার ২০১৪ এর টেট পাশ আন্দোলনকারী জমায়েত করতে শুরু করেন। কিন্তু মিছিল শুরুর আগেই করুণাময়ী মেট্রো স্টেশনের কাছে ধরপাকড় শুরু করে পুলিশ। প্রায় ৩০ জনকে আটক করা হয়। এদিকে সল্টলেকের অন্যান্য জায়গাতেও জমায়েত করেন আন্দোলনকারীরা। পুলিশের সঙ্গে তাঁদের ধস্তাধস্তি হয়। অনেকেই রাস্তায় শুয়ে পড়ে স্লোগান দিতে থাকেন। সকলেই ন্যায়ের দাবিতে সোচ্চার হয়ে ওঠেন।

বিশেষজ্ঞদের মত টেট, শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে সরকার ও পর্ষদ একের পর এক ভুল পদক্ষেপ করে গোটা বিষয়টাকেই এমন জটিল করে তুলেছে যে এর কোন‌ও সহজ সমাধান হ‌ওয়া খুব মুশকিল।

👍চাকরি ও কাজের আপডেট মিস না করতে চাইলে আমাদের ‘টেলিগ্রাম চ্যানেলে’ যুক্ত হয়ে যান

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

🎯 টেট পরীক্ষায় 150 এর মধ্যে 150 নম্বর পেলেও চাকরি অনিশ্চিত

🎯 দীর্ঘদিন পর ফুড সেফটি অফিসে চাকরি

🎯 প্রাইমারি টেট নিয়ে একদিনে ১,৪০০ মামলা দায়ের