3000 টাকা প্রতি মাসে পেতে পারেন, মোদী সরকারের এই প্রকল্পে আবেদন করে!

এবার মাস গেলে বাড়িতে বসেই 3000 (৩ হাজার) টাকা করে পাবেন! এর জন্য কোন‌ও পরিশ্রম বা কিছু করতে হবে না। সরকার‌ই আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে এবার থেকে এই অর্থ পাঠিয়ে দেবে!

শুনে চমকে গেলেন? কিন্তু এটাই সত্যি হতে চলেছে। কেন্দ্রীয় সরকারের প্রধানমন্ত্রী ‘মানধন যোজনা’-র মাধ্যমে এবার বাড়িতে বসেই প্রতি মাসে পেয়ে যাবেন ৩০০০ টাকা। স্বাভাবিকভাবেই আপনার কৌতূহল তৈরি হয়েছে যে কী করে এই অর্থ পাওয়া যাবে। এবার আপনাকে বলছি একটু অপেক্ষা করে যান।

সরকার প্রতিমাসে এই ৩ হাজার টাকা করে দেবে এটা যেমন সত্যি, তেমনই এটাও সত্যি যে তা সবাই পাবেন না। কারণ ভারতবর্ষের প্রতিটি মানুষকে মাসের শেষে ৩ হাজার টাকা করে দিতে হলে কেন্দ্রীয় সরকারের কোষাগার ফাঁকা হয়ে যাবে। স্বাভাবিকভাবেই অন্যান্য বহু প্রকল্পের মত প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনা-তেও অংশ নেওয়ার কিছু নিয়ম-কানুন আছে। চাইলেই সবাই এই সুযোগ-সুবিধা পাবে না।

3000 per month can be availed by applying this scheme of Modi Govt

কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনা প্রকল্পটি নিয়ে আসা হয়েছে দেশের দরিদ্র কৃষকদের কথা ভেবে। কৃষক ছাড়া আর কেউ এই প্রকল্পে অংশ নিতে পারবেন না। সেই সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ কথা হল, একজন কৃষকের বয়স ৬০ বছর পেরনোর পরই তিনি সরকারের তরফ থেকে প্রতিমাসে ৩ হাজার টাকা করে অবসরকালীন ভাতা পাবেন, যতদিন বেঁচে থাকবেন। অর্থাৎ আপনি যদি কৃষি কাজের সঙ্গে যুক্ত না থাকেন তবে চাইলেও সরকারের থেকে মাসে ৩ হাজার টাকা করে ভাতা পাওয়া সম্ভব নয়।

মানধন যোজনা প্রকল্পে ৩০০০ টাকা পেতে কি করতে হবে? 

(1) প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনায় নাম লেখাতে গেলে অবশ্যই আপনাকে কৃষক হতে হবে।

(2) সত্যিই আপনি কৃষক কিনা তা জানার জন্য আপনার চাষ যোগ্য জমির দলিল পরীক্ষা করে দেখা হবে। এক্ষেত্রে আপনার বাড়ির দলিল দেখিয়ে কোন‌ও লাভ হবে না। একমাত্র আপনার চাষের জমির দলিল দেখাতে পারলে তবেই প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনায় আপনি নাম লেখাতে পারবেন।

(3) প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনা প্রকল্পের বিষয়ে আর একটা অতি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, সরকার পুরোপুরি নিজের পকেট থেকে আপনাকে ভাতা দেবে না। তার জন্য ৬০ বছর বয়স হওয়ার আগে আপনাকেও সরকারের ঘরে প্রতিমাসে কিছু কিছু টাকা জমা করতে হবে।

(4) কোনও কৃষকের ১৮ বছর বয়স হলেই তিনি প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনা প্রকল্পের নাম লেখাতে পারবেন। এর জন্য তাঁকে নিকটবর্তী ব্যাঙ্ক শাখায় গিয়ে যোগাযোগ করতে হবে।

(5) সরকার জানিয়েছে, কোন‌ও কৃষকের ১৮ বছর বয়স হলেই তাঁর নিজের সমর্থ্য অনুযায়ী প্রতি মাসে ৫৫ টাকা থেকে শুরু করে ২০০ টাকা পর্যন্ত নিকটবর্তী ব্যাঙ্কে খোলা প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনা-র অ্যাকাউন্টে জমা করবেন। ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত তাঁকে এইভাবেই প্রতিমাসে টাকা জমা করে যেতে হবে। ৬০ বছর বয়স পেরোলে তবেই তাঁকে মাসে মাসে পেনশন দেওয়া শুরু করবে সরকার।

(6)  ৬০ বছর বয়স পেরোলে প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনা প্রকল্পে নাম নথিবদ্ধ করা কৃষককে সরকারের তরফ থেকে মাসে ৩ হাজার টাকা করে ভাতা দেওয়া হবে। তিনি প্রয়াত হলে তাঁর স্ত্রী মাসে তার অর্ধেক, অর্থাৎ ১৫০০ টাকা করে ভাতা পাবেন। সেই স্ত্রীও প্রয়াত হলে জীবিতকালে ওই কৃষক প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনায় মোট যত টাকা মোট জমিয়েছিলেন তা তাঁর সন্তানদের হাতে তুলে দেওয়া হবে। আর সেই সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কৃষকের প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনা প্রকল্পের অ্যাকাউন্ট‌ও বন্ধ করে দেবে সরকার।

(7) আপনার নিকটবর্তী ব্যাঙ্কের শাখায় গিয়ে ভোটার কার্ড, আধার কার্ড, প্যান কার্ডের প্রতিলিপি ও জমির দলিল দেখিয়ে প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনা প্রকল্পের অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে।

উল্লেখ্য প্রধানমন্ত্রী মানধন যোজনা প্রকল্প কৃষকদের অবসরকালীন ভাতার বিষয়টি নিশ্চিত করে। তবে এর পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী কৃষক সম্মাননিধির মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকার কৃষকদের বছরে ৬ হাজার টাকা করে ভাতা দিচ্ছে।

Important Links:  👇👇

কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপJoin Now
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো আপডেট 👇👇

🎯 ১০ লাখ টাকা ইনকাম থাকলে দিতে হবে এই পরিমান ট্যাক্স

🎯 গ্রামীণ এলাকায় এই ব্যবসা করে ভালো ইনকামের সুযোগ

🎯 মোদী প্রতিটি মেয়েকে দিচ্ছে ২ লক্ষ ২০ হাজার টাকা