৯৯.৭৮% নম্বর পেয়ে রেকর্ড করলেন এসি মেকানিকের ছেলে, পথটা সোজা ছিল না

1/7: টানাটানির সংসার। বাবা সামান্য এসি সারাইয়ের কাজ করেন। ছোট ভাই‌ও আছে। মানে সবদিক থেকেই পরিস্থিতি প্রতিকুল। কিন্তু সেই প্রতিকুলতাকেই হেলায় হারিয়ে দিলেন আহমেদাবাদের রাজিন মনসুরি। মাত্র ২২ বছরের এই ছাত্র এবারের ক্যাট পরীক্ষায় ৯৯.৭৮% নম্বর পেয়ে রেকর্ড গড়েছেন।

2/7: তবে রাজিন মনসুরির কাহিনী এখানেই শেষ ভাবলে ভুল হবে। এমন দরিদ্র পরিবারের ছেলে হয়েও তিনি এর আগেও ক্যাটে সাফল্য পেয়েছিলেন। ২০২১ এর ক্যাট পরীক্ষায় ৯৬.২০% স্কোর করেছিলেন রাজিন। সেটাই ছিল যথেষ্ট বড় সাফল্য। দরিদ্র পরিবারের সন্তান এমন ভালো স্কোর করার পর বড় প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হয়ে এমবিএ পড়বেন এটাই ছিল স্বাভাবিক। কিন্তু সে বছর প্রাপ্ত স্কোর মন মতো হয়নি এই মেধাবী ছাত্রের। তাই ফের ক্যাট বা কমন অ্যাডমিশন টেস্টে বসার সিদ্ধান্ত নেন রাজিন মনসুরি।

AC mechanic's son recorded 99.78% marks

3/7: প্রথমবারের মার্কস বাড়াতে গিয়ে দ্বিতীয়বার ব্যর্থ হওয়ার বহু নজির আছে। কিন্তু রাজিন মনসুরি ব্যর্থতা তো দুরস্ত, দ্বিতীয়বার রেকর্ড সৃষ্টিকারী ফলাফল করে ফের সসম্মানে ক্যাটের মেরিট লিস্টে নিজের নাম তুলেছেন।

4/7: এই সাফল্য পাওয়ার জন্য আহমেদাবাদের রাজিন মনসুরিকে কম পথ পেরোতে হয়নি। তাঁর বাবা ইরফান মনসুরি সামান্য এসি মেশিন মেকানিক। এই কাজ করে যা আয় হয় তাতে এক কামরা ঘরে কষ্ট করে রাজিনদের চারজনকে থাকতে হয়। যদিও মেধাবী এই ছাত্র ছোট থেকেই স্কলারশিপ পেয়ে এসেছে বলে পড়াশোনাটুকু অন্তত চালাতে পেরেছে।

5/7: তার স্বপ্ন ছিল সে বড় হয়ে পরিবারের এই দুর্দশা ঘোচাবে। সেই সঙ্গে নিজের মেধা ও দক্ষতার উপর ছিল তার অগাধ বিশ্বাস। তাইতো ক্যাটে ৯৬.২০ পারসেন্টাইল স্কোর করেও সন্তুষ্ট হয়নি সে। ভাগ্যিস সন্তুষ্ট হয়নি, তাই এবার এই রেকর্ড গড়তে পারল এই গুজরাটি ছাত্রটি।

6/7: জানা গিয়েছে রাজিন মনসুরি ইতিমধ্যেই আহমেদাবাদ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করেছেন। মেধাবী ছাত্র হিসেবে সে ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করার পরই বার্ষিক ৬ লক্ষ টাকা প্যাকেজে চাকরিও পেয়ে যায়। যদিও ম্যানেজমেন্ট পড়ে ক্যারিয়ার গড়ার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া রাজিন মনসুরি সেই চাকরিতে যোগ দেয়নি। বদলে ক্যাট দিয়ে এমবিএ পড়ার স্বপ্ন ও লক্ষ্যে অবিচল থাকে সে।

7/7: ৯৯.৭৮ পার্সেন্টাইল নম্বর পেয়ে ক্যাট পাশ করার ফলে দেশের শীর্ষস্থানীয় ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান আইআইএম-এর আহমেদাবাদ বা বেঙ্গালুরু, এই দুই প্রিমিয়াম সেন্টারেই পড়ার সুযোগ পেয়েছে রাজিন। এখন কোথায় পড়বে সেই সিদ্ধান্ত এই মেধাবী ছাত্রটির উপর‌ই নির্ভর করছে।

বিঃদ্র: নতুন কোনো চাকরির আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে যুক্ত হয়ে যান। নিচে যুক্ত (Join) হওয়ার লিংক দেওয়া রয়েছে ঐ লিংকে ক্লিক করলেই যুক্ত হয়ে যেতে পারবেন। ওখানেই সর্বপ্রথম আপডেট দেওয়া হয়। আর আপনি যদি অলরেডি যুক্ত হয়ে থাকেন এটি প্লিজ Ignore করুন। 

Important Links:  👇👇
কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপে জয়েন হোনClick Here
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇  

🎯 স্কুল শিক্ষকদের জন্য কড়া নিয়ম জারি

🎯 রাজ্যে VRDL প্রোজেক্টে ডাটা এনট্রি অপারেটর নিয়োগ

🎯 রাজ্যে প্যারা টিচারদের বেতন কত?