১,৫০০ জন চাকরিপ্রার্থীর নিয়োগ বাতিল! ২ মাসের মধ্যে নতুন প্যানেল প্রকাশের নির্দেশ

আর্থিক মন্দার উপর ফের বিশ্বজুড়ে করোনার চোখ রাঙানি বাড়ছে। আর তাতেই অর্থনীতির অবস্থা আবার বেহাল হয়ে পড়ার আশঙ্কা প্রবল হয়ে উঠেছে। ইতিমধ্যেই বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা কর্মী ছাঁটাই শুরু করেছে। অনেকে আবার কর্মীদের বেতন কমিয়ে দিচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে সরকারি চাকরি‌ই এখন মানুষের আশা-ভরসার জায়গা হয়ে উঠেছে। কিন্তু আদালতের নির্দেশে ১,৫০০ চাকরিপ্রার্থীর চাকরি পাওয়াই হল না! আটকে গেল নিয়োগ প্রক্রিয়া

মামলা মোকদ্দমায় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন দফতরের নিয়োগ আটকে যাওয়াটা যেন নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। এবার কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের নির্দেশে গুরুত্বপূর্ণ দমকল বিভাগে দেড় হাজার ফায়ার অপারেটর (Fire Operator) এর নিয়োগ প্রক্রিয়া থমকে গেল। কলকাতা হাইকোর্ট জানিয়েছে পুরানো প্যানেল বাতিল করে নতুন প্যানেল দ্রুত প্রকাশ করতে হবে। আর এই কাজ করতে হবে আগামী দু’মাসের মধ্যে

Cancellation of 1,500 job seekers! Order to release new panel within 2 months

কাদের এবং কেন চাকরি আটকে গেল?

1/5: রাজ্যের দমকল বিভাগ দীর্ঘদিন ধরে পর্যাপ্ত কর্মীর সংখ্যার অভাবে ধুঁকছে। মাঝে চুক্তিভিত্তিতে ফায়ার অপারেটর অর্থাৎ দমকল কর্মী নিয়োগ করে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তাতে নানান দুর্ঘটনায় আদৌ কতটা কী করা গিয়েছে সেই নিয়ে বারবার প্রশ্ন উঠছিল।

2/5: ২০১৮ সালে দমকল বাহিনীতে ১৫০০ স্থায়ী ফায়ার অপারেটর নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য সরকার (WB Govt.)। রাজ্য পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (PSC) মাধ্যমে এই নিয়ে প্রথমে লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয়। পরে লিখিত পরীক্ষার ভিত্তিতে তৈরি প্যানেলকে ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাকা হয়।

3/5: ইন্টারভিউ অর্থাৎ মৌখিক পরীক্ষা শেষে ১,৫০০ জনের নিয়োগের চূড়ান্ত প্যানেল প্রকাশ করা হয়। তারপরই কলকাতা হাইকোর্টে এই নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলে মামলা দায়ের করেন চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ। অভিযোগ ওঠে, দমকলের ফায়ার অপারেটর নিয়োগের সংরক্ষিত তালিকায় যারা চাকরি পেয়েছে তারা যোগ্য নয়। বেআইনিভাবে তাদের চাকরি দেওয়া হয়েছে। বেশিরভাগের‌ই কাস্ট সার্টিফিকেট নেই বলেও অভিযোগ ওঠে।

4/5: এর পাশাপাশি লিখিত পরীক্ষায় ভুল প্রশ্ন থাকলেও তার নম্বর দেওয়া হয়নি বলেও অভিযোগ। এই নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা হয়। আদালত নিয়োগ প্রক্রিয়ার উপর স্থগিতাদেশ জারি করে পিএসসির কাছে এই বিষয়ে পর্যাপ্ত তথ্য চেয়ে পাঠায়। কিন্তু সেই সময় পিএসসি আদালত নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যাবতীয় তথ্য দিতে না পারায় তাদেরকে দশ হাজার টাকা জরিমানা করেছিলেন বিচারপতি।

5/5: দেখা গেল শেষ পর্যন্ত পুরনো ১৫০০ জনের প্যানেলটাই বাতিল করে দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। বদলে পিএসসিকে নতুন করে নিয়োগের প্যানেল প্রকাশ করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আর এই গোটা বিষয়টাই আগামী দু’মাসের মধ্যে করতে হবে বলে জানিয়েছেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডনের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ। 

বিঃদ্র: নতুন কোনো চাকরি ও কাজের আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে যুক্ত হয়ে যান। নিচে যুক্ত (Join) হওয়ার লিংক দেওয়া রয়েছে ঐ লিংকে ক্লিক করলেই যুক্ত হয়ে যেতে পারবেন। ওখানেই সর্বপ্রথম আপডেট দেওয়া হয়। আর আপনি যদি অলরেডি যুক্ত হয়ে থাকেন এটি প্লিজ Ignore করুন।  

Important Links:  👇👇
কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপে জয়েন হোনClick Here
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇 

🎯 ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশনে প্রচুর শূন্যপদে নিয়োগ

🎯 রাজ্যে CHA সহ বিভিন্ন পদে চাকরি

🎯 দিনে ৮ ঘন্টা দাঁড়িয়ে ট্রেন গুনতে হবে (আজব চাকরি)