নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় শিক্ষাকর্তা সহ ১২ জনের নামে চার্জশীট CBI এর, বাঁচার প্ল্যানিং করেও শেষ রক্ষা হল না!

রাজ্যের শিক্ষাক্ষেত্রে কীভাবে পরিকল্পনা করে সার্বিক দুর্নীতি হয়েছিল তা আরও স্পষ্ট করল সিবিআই (CBI)। কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে উচ্চশিক্ষার পাশাপাশি প্রাথমিক শিক্ষা ক্ষেত্রেও নিয়োগ দুর্নীতি মামলার তদন্ত করছে সিবিআই। আর সেই তদন্ত করতে গিয়েই বিপুল অর্থের লেনদেন, ঘুষ সহ ব্যাপক আর্থিক কেলেঙ্কারির প্রমাণ পেতেই তদন্ত প্রক্রিয়ায় যোগ দেয় এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টর (ED)

এদিকে তাদের হাতে ধৃত ৬ অভিযুক্ত শিক্ষাকর্তা সহ মোট ১২ জনের বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টে প্রাথমিক চার্জশিট পেশ করেছে সিবিআই। তাৎপর্যপূর্ণভাবে এই চার্জশিটে দুই মহিলার নামও আছে।

CBI has charged 12 people in the recruitment corruption case

কাদের বিরুদ্ধে কী অভিযোগে চার্জশিট পেশ?

মঙ্গলবার কলকাতা হাইকোর্টে সিবিআই মোট ১২ জনের নামে চার্জশিট পেশ করেছে। সেই তালিকায় মধ্যশিক্ষা পর্ষদের প্রাক্তন চেয়ারম্যান কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়, এসএসসির প্রাক্তন সভাপতি সুবীরেশ ভট্টাচার্য, পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঠিক করে দেওয়া এসএসসির উপদেষ্টা কমিটির প্রাক্তন প্রধান শান্তিপ্রসাদ সিনহা, এসএসসির সহকারী সচিব অশোক কুমার সাহাদের নাম আছে।

এদের নিয়োগ দুর্নীতির মাস্টারমাইন্ড হিসেবে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে সিবিআই। এর পাশাপাশি এসএসসির উচ্চপদস্থ আধিকারিক পর্ণা বসু ও প্রাক্তন শিক্ষিকা জুঁই দাসের নামও আছে সিবিআইয়ের পেশ করা চার্জশিটে।

সিবিআই জানিয়েছে, নবম-দশম ও একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষক নিয়োগ এবং এসএসসির মাধ্যমে অশিক্ষক কর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ পরিকল্পনা করে এক বৃহৎ দুর্নীতির জাল বোনা হয়েছিল। সেই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে এরা সকলেই জড়িত। এমনকি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাতজামাই প্রসন্ন কুমার রায়ের নামও আছে ওই চার্জশিটে। তাঁকেও এই দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার করেছে সিবিআই। তিনি শান্তিপ্রসাদ সিনহার এজেন্ট হিসেবে মার্কেটে কাজ করতেন বলে সিবিআইয়ের দাবি।

অভিযুক্তদের বাঁচার উপায় এর প্ল্যানিং ফাস করল CBI

কলকাতা হাইকোর্টে জমা দেওয়া চার্জশিটে চাঞ্চল্যকর দাবি করে সিবিআই জানিয়েছে, অপরাধ করার সময়ই অভিযুক্তরা এক কষে রেখেছিল যদি ফেঁসে যায় তবে কী করে নিজেদের রক্ষা করবে। সেই মতো তারা বিভিন্ন কাগজপত্র সরানো, সাক্ষীদের প্রভাবিত করা, হিসেব-নিকেশ এদিক-ওদিক করার কাজ করছিল।

শান্তিপ্রসাদ সিনহাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরুর আগে নিয়োগ দুর্নীতিতে অভিযুক্ত কম গুরুত্বপূর্ণদের যখন সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ করছিল তখন থেকেই নিজেদের বাঁচানোর এই প্রক্রিয়া অভিযুক্তরা শুরু করে বলে কেন্দ্রীয় এজেন্সিটির দাবি। তারা জানিয়েছে, আগে জিজ্ঞাসাবাদ করাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে ধৃতরা জেনে নিত সিবিআই কী কী প্রশ্ন করেছে, তদন্ত কোন দিকে এগোচ্ছে।

সেই মতো অভিযুক্তরা নিজেদের পিঠ বাঁচানোর যুক্তি তৈরি করত। সেইসঙ্গে নথিপত্র সাজানোর চেষ্টাও করছিল। এই বিষয়টি উল্লেখ করে সিবিআই কলকাতা হাইকোর্টে আর্জি জানিয়েছে, এই নিয়োগ কেলেঙ্কারির একেবারে মূলে পৌঁছতে হলে ধৃতদের নিজেদের হেফাজতে নিয়ে আরও জিজ্ঞাসাবাদ প্রয়োজন।

যদিও অভিযুক্ত পক্ষের আইনজীবীরা সিবিআইয়ের দাবি অস্বীকার করেছেন। এদিকে সিবিআইয়ের চার্জশিটের বয়ান জানতে পারার পর বঞ্চিত চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে ক্ষোভ তুঙ্গে উঠেছে। 

Important Links: 👇👇

কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপে জয়েন হোন- Click Here

▶️ প্রতিদিনের চাকরির আপডেটঃ Job Update

👍চাকরি ও কাজের আপডেট মিস না করতে চাইলে আমাদের ‘টেলিগ্রাম চ্যানেলে’ যুক্ত হয়ে যান

Join Kajkarmo Telegram.jpeg

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

🎯 ইনফোসিসে বাড়িতে থেকেই 24,500 টাকা বেতনের চাকরির সুযোগ

🎯 ২ টি জেলাতে প্রাইমারি টেটের কোনো শূন্যপদ নেই

🎯 প্রাইমারি টেটের ফর্ম ফিলাপে বহু ভুল, উপায় কী?