D.El.Ed vs B.Ed কেস আপডেট- পাল্লা ভারি ডিএলএড এর | D.El.Ed vs B.Ed Supreme Court Case Update

D.El.Ed vs B.Ed কেস আপডেট: প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ এবং টেট পরীক্ষা নিয়ে বিতর্ক, জল্পনা দীর্ঘদিন ধরে চলছে। সবে একমাস হল দীর্ঘ পাঁচ বছর পর টেট পরীক্ষা হয়েছে। বর্তমানে রাজ্যে প্রায় সাড়ে এগারো হাজার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। ইতিমধ্যেই তার ইন্টারভিউ পর্ব শুরু হয়ে গিয়েছে।

কিন্তু এই সময়ই সুপ্রিম কোর্টের এক চাঞ্চল্যকর রায়ে পুরো খেলাটাই ঘুরে গেল। চরম বিপদে পড়লেন B.Ed পাস চাকরিপ্রার্থীরা‌। কার্যত তাঁদের জন্য প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরির দরজাটাই বন্ধ হয়ে যেতে বসেছে!

D.El.Ed vs B.Ed Supreme Court Case Update

সুপ্রিম কোর্টের শুনানিতে পাল্লা ভারি D.El.Ed এর

1/7: হাইস্কুল অর্থাৎ নবম-দশম এবং একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষকের চাকরির জন্য বিএড পাস আবশ্যিক। কিন্তু তাঁরা প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষকতা করতে পারবেন কিনা এই নিয়ে বিতর্ক দীর্ঘদিনের। D.El.Ed পাস চাকরিপ্রার্থীদের দাবি ছিল, একমাত্র তারাই প্রাথমিক শিক্ষক হওয়ার যোগ্য।

2/7: এই নিয়ে বিতর্ক হাইকোর্ট পেরিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দরজায় গিয়ে পৌঁছয়। বিএড ও ডিএলএড পাস চাকরিপ্রার্থীদের এই মামলার স‌ওয়াল-জবাব শেষে বৃহস্পতিবার চূড়ান্ত শুনানি দেয় দেশের সর্বোচ্চ আদালত অর্থাৎ সুপ্রিম কোর্ট। আর তাতেই বিপদে পড়ে গিয়েছে বিএড পাস চাকরিপ্রার্থীরা।

3/7: সর্বোচ্চ আদালতে স‌ওয়াল জবাবের সময় ডিএল‌এড উত্তীর্ণ চাকরিপ্রার্থীদের পক্ষ থেকে আইনজীবী জানান, এর আগে পশ্চিমবঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে পর্যাপ্ত ডিএলএড পাস চাকরিপ্রার্থী ছিল না বলেই বিএড পাস চাকরিপ্রার্থীদের টেট পরীক্ষায় বসার ও চাকরিতে নিয়োগের সাময়িক অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

4/7: কিন্তু বর্তমান সময়ে দেখা যাচ্ছে রাজ্যে যত প্রাথমিক শিক্ষকের শূন্য পদ আছে তার থেকে ডিএল উত্তীর্ণ চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যা বেশি হয়ে গিয়েছে। তাই বিএড পাস চাকরিপ্রার্থীদের আর কোনও প্রয়োজন নেই।

5/7: ডিএলএড উত্তীর্ণ চাকরিরপ্রার্থীদের আইনজীবীর এই বক্তব্য কার্যত মেনে নিয়েছে দেশের সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতিরা। এদিন বিহার, রাজস্থান এবং পশ্চিমবঙ্গের আইনজীবীরা চাচ্ছেন প্রাথমিকে শুধুমাত্র ডিএলএড (D.El.Ed) পাশেরাই বসার সুযোগ পাক। কোর্টে দীর্ঘ আলোচনার পর ডিএলএড পাশেদের পক্ষেই শুনানি যেতে দেখা গিয়েছে।

6/7: তবে D.El.Ed vs B.Ed এর এই কেসের রায় দেওয়া হয়নি। আগামী ১৬ নভেম্বর ফাইনাল শুনানির দিনেই এনিয়ে ফাইনাল রায় জানিয়ে দেবে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা। আর এতে ডিএলএড দের পক্ষেই রায় যাবে বলে মনে করছেন  বিশেষজ্ঞ মহল। 

7/7: এদিকে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশের আশঙ্কা, সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের পর যে সমস্ত প্রাথমিক শিক্ষক বিএড উত্তীর্ণ এবার তাঁদের চাকরি নিয়ে টানাটানি পড়ে যেতে পারে। যদিও এই বিষয়ে সর্বোচ্চ আদালত তাদের রায় কিছু বলেনি। এখন দেখার সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের পর বিএড উত্তীর্ণ চাকরিপ্রার্থীরা কী করেন বা প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ নতুন কোন‌ও বিজ্ঞপ্তি জারি করে কিনা।

Important Links:  👇👇

কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপJoin Now
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো আপডেট 👇👇

🎯 গ্রামীণ এলাকায় এই ব্যবসা করে ভালো ইনকামের সুযোগ

🎯 এই ৬ টি জেলায় হবে প্রাইমারির পঞ্চম দফার ইন্টারভিউ

🎯 সেন্ট্রাল সিল্ক বোর্ডে গ্রুপ-C, B, A পোস্টে চাকরি