অষ্টম শ্রেণি পাশে প্রাইমারি শিক্ষকের চাকরি, নেতা হিসেবে চাকরি দেওয়ার নামে টাকাও নিয়েছেন

টাকার বিনিময়ে প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি দেওয়ার অভিযোগে ফাঁসল বাংলার শাসকদলের আরেক নেতা। এই ঘটনায় কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের হয়। সেই মামলার শুনানি চলাকালীন আরও এক বিস্ফোরক অভিযোগ উঠে আসে।

তৃণমূল কংগ্রেসের ওই নেতা নাকি ক্লাস এইট পাস যোগ্যতা নিয়েই প্রাথমিক শিক্ষক হয়ে গিয়েছেন! যা শুনে চক্ষু চরকগাছ হয়ে যায় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের। শুক্রবার, অর্থাৎ ১৬ই ডিসেম্বর তৃণমূলের ওই নেতা অর্থাৎ ভাটপাড়া পুরসভার উপ-পুরপ্রধান দেবজ্যোতি ঘোষকে হাইকোর্টে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি।

He also took money in the name of giving a job as a primary teacher, a leader in the eighth grade

অষ্টম শ্রেনি পাশ শিক্ষক দেবজ্যোতি ঘোষের আরও কীর্তি

1/5: তৃণমূল নেতা দেবজ্যোতি ঘোষ সেই ভাটপাড়া পুরসভার উপ-পুরপ্রধান, যেখানে বোমা-গুলির লড়াই প্রায় রোজের বিষয়ে হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে তাঁকে শুধু উপ-পুরপ্রধান ভাবলে ভুল হবে। যার বিরুদ্ধে অষ্টম শ্রেণি পাসের যোগ্যতায় প্রাথমিক শিক্ষকতা করার অভিযোগ আছে, সেই তিনি নাকি প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের গুরুত্বপূর্ণ অ্যাড হক কমিটির অন্যতম সদস্য!

2/5: হ্যাঁ, ঠিকই পড়ছেন। দেবজ্যোতি ঘোষের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অ্যাড হক কমিটির সদস্য হওয়ার সুবাদে তিনি কোয়েনা দে নামে এক চাকরিপ্রার্থীর কাছ থেকে নাকি টাকা নিয়েছিলেন প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি দেবেন বলে। এই নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের হয়। বুধবার সেই মামলার শুনানি ছিল বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে।

3/5: এই মামলার শুনানি চলাকালীন মামলাকারির আইনজীবী অভিযোগ করেন, প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অ্যাড হক কমিটির সদস্য হওয়ার বিষয়টি কাজে লাগিয়ে বেআইনিভাবে টাকা নিয়ে অনেককে চাকরি দিয়েছেন শাসকদলের এই নেতা। সেই সঙ্গে ওই আইনজীবী জানান, দেবজ্যোতি ঘোষের পাসপোর্টে লেখা আছে তিনি অষ্টম শ্রেণি পাস। অর্থাৎ মাত্র ক্লাস ৮ পর্যন্ত পড়ার যোগ্যতা নিয়ে তিনি প্রাথমিক শিক্ষক হয়ে গিয়েছেন!

4/5: এই কথা শুনেই রীতিমত বিস্মিত ও ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় (Abhijit Gangopadhyay)। তিনি শুক্রবার ভাটপাড়া পুরসভার উপ-পুরপ্রধানকে সশরীরে হাইকোর্টে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। যাতে এই হাজিরায় কোনরকম ভুলচুক না হয় তার জন্য গোটা বিষয়টি ব্যারাকপুর কমিশনারেটের পুলিশ কমিশনারকে দেখতে বলেছেন বিচারপতি।

5/5: যেখানে হাজার হাজার চাকরিপ্রার্থী রাস্তায় বসে আন্দোলন লড়াই করছে, সেখানে একজন স্রেফ অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত যোগ্যতা নিয়ে শিক্ষক হয়ে গিয়েছেন, তা জানাজানি হতেই আলোড়ন পড়ে গিয়েছে সর্বত্র।

বিঃদ্র: নতুন কোনো চাকরির আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে যুক্ত হয়ে যান। নিচে যুক্ত (Join) হওয়ার লিংক দেওয়া রয়েছে ঐ লিংকে ক্লিক করলেই যুক্ত হয়ে যেতে পারবেন। ওখানেই সর্বপ্রথম আপডেট দেওয়া হয়। আর আপনি যদি অলরেডি যুক্ত হয়ে থাকেন এটি প্লিজ Ignore করুন। 

Important Links:  👇👇
কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপে জয়েন হোনClick Here
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো গুরুত্বপূর্ণ আপডেট- Click Here