রাজ্যে বন্ধ হলো সরকারি চাকরির গুরুত্বপূর্ণ একটি সুবিধা, অনেকের কপালে চিন্তার ভাজ! আবার করে শুরু হচ্ছে?

শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠার পর রাজ্যের শিক্ষাক্ষেত্রে একের পর এক বিপত্তি এসেই চলেছে। তা যেন থামার নাম নেই। সিবিআই তদন্তের মাঝেই এবার প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য বন্ধ হতে চলেছে এক গুরুত্বপূর্ণ সুবিধা। ফলে পুজোর আগে কপালে চিন্তার ভাজ রাজ্যের কয়েক লক্ষ প্রাথমিক শিক্ষকের।

এসএসসির পাশাপাশি প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগেও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের নির্দেশে সেই সমস্ত দুর্নীতির অভিযোগের তদন্ত করছে সিবিআই।

সম্প্রতি ১৮৭ জনকে পূজোর আগেই প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। টেট পরীক্ষায় ভুল প্রশ্নের জন্য বরাদ্দ নম্বর পেতেই এরা চাকরি পাওয়ার নির্ধারিত যোগ্যতা মান পেরিয়ে যায়।

Important Government Jobs Benefit Stopped

কিন্তু কোন পদে এদের নিয়োগ করা হবে তা নিয়ে প্রাথমিক একটা জটিলতা তৈরি হয়েছিল। তাই রায় দিতে গিয়ে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় জানান, এই ১৮৭ জনকে প্রয়োজনে ভবিষ্যতের শূন্য পদে নিয়োগ করতে হবে।

এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে বর্তমানে প্রাথমিক শিক্ষকের কত শূন্য পদ আছে এবং আগামী দিনে কত শূন্য পদ নতুন করে তৈরি হতে চলেছে তা নির্ধারণ করা অত্যন্ত জরুরি হয়ে পড়েছে। আর তা করতে গিয়েই বর্তমানে কর্মরত প্রাথমিক শিক্ষকদের এক গুরুত্বপূর্ণ সুবিধা বন্ধ করে দেওয়া হল।

কোন সুবিধা বন্ধ হচ্ছে?

তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০১২, ২০১৪ ও ২০১৭ সালে প্রাথমিকে টেট পরীক্ষা হয়। তৃণমূল জামানায় এখনও অব্দি প্রায় ৬০ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ হয়। যদিও সেই নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগের পাশাপাশি পোস্টিং নিয়েও অনেক অভিযোগ আছে।

অনেককেই নিজের জেলার বাইরে নিয়োগ করা হয়। আবার নিজের সার্কেলে শূন্যপদ থাকা সত্ত্বেও দূরে পোস্টিং দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে। এই পরিস্থিতিতে চাপে পড়ে সমস্যা সমানে সরকার উৎসশ্রী নামে একটি পোর্টাল নিয়ে আসে। যাতে ট্রান্সফার সংক্রান্ত বিষয় সহজে ও স্বচ্ছতার সঙ্গে সারা যায়।

উৎসশ্রীর মাধ্যমে মিউচ্যুয়াল, জেনারেল ও মেডিকেল, এই তিন ক্যাটাগরিতে ট্রান্সফার হয়। কিন্তু এই মুহূর্তের প্রকৃত শূন্যপদের সংখ্যা নির্ধারণের জন্য‌ই আপাতত এই পোর্টালের কাজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। ফলে এখন আর কোনও প্রাথমিক শিক্ষক উৎসশ্রীর মাধ্যমে ট্রান্সফারের আবেদন জানাতে পারবেন না

আবার কবে চালু হবে এই সুবিধা? 

শিক্ষা মহলের ধারণা, দুর্গাপুজোর পর আবার উৎসশ্রীর কাজ শুরু হতে পারে। তবে ট্রান্সফার নিয়েও বহু অভিযোগ আছে বলে অভিযোগ।

উল্লেখ্য, বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় যে ১৮৭ জনকে পুজোর আগেই নিয়োগ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন, তাদের যাবতীয় কাগজপত্রের ভেরিফিকেশন সোমবার হয়ে গিয়েছে।

👍 চাকরি ও কাজের আপডেট মিস না করতে চাইলে আমাদের ‘টেলিগ্রাম চ্যানেলে’ যুক্ত হয়ে যান
Join Kajkarmo Telegram.jpeg
🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇 

🎯 গ্রুপ-C আপার ডিভিশন ক্লার্ক, DEO সহ আরো পদে চাকরি

🎯 দুয়ারে সরকার ক্যাম্পেই মিলবে চাকরির সুরাহা

🎯 চাকরি না পেয়ে হতাশায় ভোগা চাকরিপ্রার্থীদের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর বিশেষ পরামর্শ