এই ৮ টি নতুন নিয়ম না জেনে টেট (TET) পরীক্ষা দিতে গেলেই বিপদ! কি এই নিয়ম?

দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসানের পর চলতি ২০২২ সালের ১১ ডিসেম্বর টেট পরীক্ষা হতে চলেছে। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ইতিমধ্যে টেট পরীক্ষা ২০২২ সংক্রান্ত একটি সম্পূর্ণ গাইডলাইন প্রকাশিত হয়ে গেছে। সেখানে বেশ কিছু নিয়ম জানানো হয়েছে যেগুলি একজন টেট পরীক্ষার্থীকে মানতে হবে। পরীক্ষা সেন্টারে যাওয়ার আগে নিয়মগুলো অবশ্যই একজন টেট পরীক্ষার্থীকে জানতে হবে। 

এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে টেট পরীক্ষার সংক্রান্ত আটটি এমন নিয়মের কথা জানাবো যেগুলি একজন টেট প্রার্থীকে অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে। পরীক্ষা হলে এই কয়েকটি নিয়ম না মানলে আপনার টেট পরীক্ষা বাতিল হতে পারে। 

It is dangerous to take the TET exam without knowing these 8 new rules

টেট (TET) পরীক্ষার সময় মানতে হবে এই ৮ টি নিয়ম 

  • ১১ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখ অর্থাৎ টেট পরীক্ষার দিন, পরীক্ষা শুরুর ২ ঘন্টা আগে টেট পরীক্ষার সেন্টারে পৌঁছতে হবে। 
  • টেট পরীক্ষার হলে কোন ধরনের ইলেকট্রনিক্স জিনিস অর্থাৎ মোবাইল, স্মার্টওয়াচ, হেডফোন স্ক্যানার, ব্লুটুথ হেডসেট, ক্যালকুলেটর ইত্যাদি নিয়ে যাওয়া চলবে না। 
  • ছেলে অথবা মেয়ে কোন পরীক্ষার্থীর শরীরে কোন ধরনের গয়না থাকলে তাকে পরীক্ষা হলে ঢুকতে দেওয়া হবে না। 
  • একজন টেট পরীক্ষার্থী তার সঙ্গে পেন্সিল বক্স, পেন্সিল, রবার, কোন ধরনের কাগজ, বোর্ড ইত্যাদি নিয়ে যেতে পারবে না। 
  • পরীক্ষার হলে কোন খাবার এবং জলের বোতল এসব নিয়ে ঢোকা নিষেধ। 
  • পরীক্ষার্থীকে তার এডমিটের রোল নম্বর অনুযায়ী নির্ধারিত সিটে বসতে হবে। কোন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে না আসলে তার ফাঁকা সিটে অন্য কোন পরীক্ষার্থী বসতে পারবে না। কেউ যদি এমনটা করে তাহলে তার টেট পরীক্ষার খাতা বাতিল করা হবে। 
  • টেট পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে শেষ হওয়ার আগে পর্যন্ত কোন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা হল থেকে বের হতে পারবে না। যদি কারো পরীক্ষা শেষ হয় এবং ইমারজেন্সি থাকে তাহলে সেই পরীক্ষার্থী পরীক্ষার সেন্টারের ইনভেজিলেটরের অনুমতি নিয়ে পরীক্ষা হল থেকে নির্দিষ্ট সময়ের আগে বের হতে পারবে। 
  • কোন টেট পরীক্ষার্থী সে মেয়ে হোক বা ছেলে, তার সঙ্গে পার্স অর্থাৎ মানিব্যাগ সঙ্গে করে টেট পরীক্ষার হলে নিয়ে যেতে পারবে না। 

TET পরীক্ষার হলে এ সমস্ত নিয়ম না মানলে কি হবে? 

উপরে দেওয়া এই সমস্ত নিয়মগুলি যদি কোন টেট পরীক্ষার্থী না মানে তাহলে তার পরীক্ষা বাতিল হবে। শুধু তাই নয় কিছু কিছু ক্ষেত্রে তাকে কঠোরমূলক শাস্তি পেতে হবে। আরেকটি বিষয় যেটি আমাদের রাজ্যে সচরাচর দেখা যায়, যদি কেউ অন্য কারো হয়ে পরীক্ষা দিতে গিয়ে ধরা পড়ে তাহলে তার ক্যারিয়ার নষ্ট হবে এমনকি জেল খাটতেও হতে পারে। 

টেট পরীক্ষায় অতিরিক্ত বিধি নিষেধ কেন? 

আমরা সকলেই জানি ২০১১ সালের পর রাজ্যের প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে কি পরিমান বেলাগাম দুর্নীতি হয়েছে। এই কারণে প্রাইমারি শিক্ষক তাদের ঘুষ দিয়ে পাওয়া চাকরি ছাড়তেও বাধ্য হয়েছে।

শুধু তাই নয়, শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির সাথে জড়িত রাজ্যের শীর্ষ স্থানীয় নেতারা এখন জেলে। তাই আগামী দিনে টেট পাশের উপর ভিত্তি করে প্রাইমারিতে নিয়োগ এর ক্ষেত্রে যেন কোনরকম দুর্নীতি না হয় সেজন্য এরকম অতিরিক্ত কিছু নিয়ম প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ থেকে লাগু করা হয়েছে। 

বিঃদ্র: নতুন কোনো চাকরির আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে যুক্ত হয়ে যান। নিচে যুক্ত (Join) হওয়ার লিংক দেওয়া রয়েছে ঐ লিংকে ক্লিক করলেই যুক্ত হয়ে যেতে পারবেন। ওখানেই সর্বপ্রথম আপডেট দেওয়া হয়। আর আপনি যদি অলরেডি যুক্ত হয়ে থাকেন এটি প্লিজ Ignore করুন। 

Important Links:  👇👇

কাজকর্ম Whatsapp গ্রুপে জয়েন হোন: Click Here

✅ Telegram Channel: Join Now

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

🎯 বরখাস্ত ২৬৯ প্রাইমারি শিক্ষক পেল লাইনলাইন

🎯 রাজ্যে সরাসরি ইন্টারভিউ দিয়ে 25 হাজার টাকা বেতনের চাকরি

🎯 ৫০% এর কম নম্বর থাকলেও টেটে বসতে পারবে, কিন্তু কারা?