SBI-র গ্রাহকদের বাড়বে খরচ, RBI এর ঘোষনায় নাজেহাল অবস্থা

1/6: মুদ্রাস্ফীতি এই মুহূর্তে কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণে এসেছে। তবুও বাজারে নগদ অর্থের যোগানের উপর নিয়ন্ত্রণের রাশ আলগা করতে রাজি নয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া (RBI)। আর তাতেই কপাল পুড়ছে মধ্যবিত্তের। RBI যত রেপো রেট বাড়াচ্ছে ততই মূলধন যোগানের খরচ বাড়ার অজুহাতে ঋণের উপর লাফিয়ে লাফিয়ে সুদ বাড়াচ্ছে ব্যাঙ্কগুলো।

2/6: ভারতের মফস্বল ও গ্রামাঞ্চলের বেশিরভাগ মধ্যবিত্ত মানুষ স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া (SBI)-র গ্রাহক। এই সরকারি ব্যাঙ্কটিকে তাঁরা ভরসাও করেন। আজকালকার দিনে মধ্যবিত্তরা SBI থেকে ঋণ নিয়ে বাড়ি তৈরি করেন, ফ্ল্যাট কেনেন, গাড়ি কেনেন। আরও নানান ক্ষেত্রেই স্টেট ব্যাঙ্ক থেকে লোন নিয়ে নানান কাজ করে থাকেন সাধারণ মানুষ।

SBI customer charges will increase, RBI's announcement upsets the situation

3/6: কিন্তু ক্রমাগত ঋণের উপর স্টেট ব্যাঙ্ক সুদের হার বাড়াতে থাকায় সংসার খরচ সামলাতেই হিমশিম খাচ্ছে আমজনতা। ধার নেওয়া অর্থের উপর এক ধাক্কায় EMI-এর বোঝা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। কিন্তু সেই অনুপাতে আয় না বাড়ায় রীতিমত সংসারের চাল ডাল কেনায় টানাটানি শুরু হয়েছে বহুজনের।

আরো আপডেট: ১০ লাখ টাকা ইনকাম থাকলে দিতে হবে এই পরিমান ট্যাক্স

4/6: গত এক বছরে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক রেপো রেট ২.২৫ বেসিস পয়েন্ট বাড়িয়েছে। ফলে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ঋণের উপর স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া তাদের সুদের হার বাড়িয়েছে। পরিস্থিতি এমন জায়গায় গিয়ে পৌঁছেছে যে লোন নিয়ে যারা ফ্ল্যাট কিনেছেন তাঁদের প্রতি মাসে ইএমআই-এর খরচ এক ধাক্কায় তিন থেকে চার হাজার টাকা বেড়ে গিয়েছে! বছরখানেক আগেও তাঁরা যখন ঋণ নিয়েছিলেন তখন পরিস্থিতি এই জায়গায় গিয়ে যে পৌঁছবে তা ভাবা যায়নি। তবে বর্তমান অবস্থায় বাধ্য হয়ে কোনরকমের সংসার চালিয়ে ইএমআই দিতে বাধ্য হচ্ছেন দেশের বেশিরভাগ মধ্যবিত্ত মানুষ।

5/6: অর্থনীতিবিদদের একাংশ এখন দাবি তুলতে শুরু করেছেন- এবার রেপো রেট (Repo Rate) বাড়ানো কমাক রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। শোনা যাচ্ছে, দেশের মুদ্রাস্ফীতির অবস্থা কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসায় আর হয়ত এক্ষুণি সুদ বাড়াবে না কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক। সেক্ষেত্রে একটু হলেও স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলবেন সাধারণ মানুষ।

আরো আপডেট: ভুলে অন্যের অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠিয়ে ফেললে এটি করুন

6/6: কিন্তু ইএমআই-এর বোঝা নতুন করে না বাড়লেও তা এক বছর আগের পরিস্থিতিতে এক্ষুণি চট করে ফিরবে বলে আশা করছেন না বিশেষজ্ঞরা। উল্টে তাঁরা সাবধান করে দিয়ে জানিয়েছেন, চলতি বছরের মাঝামাঝি অর্থনৈতিক মন্দা আছড়ে পড়ার আশঙ্কা আছে। তাই ব্যাঙ্ক থেকে লোন নিয়ে থাকলে ইএমআই-এর অর্থ কিছুটা কিছুটা করে সরিয়ে রাখা ভালো। তাতে পরিস্থিতি জটিল হলেও ঋণ খেলাপি হতে হবে না। 

আরো আপডেট: 3000 টাকা পাবেন মোদী সরকারের এই প্রকল্পে 

Important Links:  👇👇

কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপJoin Now
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো আপডেট-Click Here