সরকারি কর্মীদের ঘুষ নেওয়ার দিন শেষ, সুপ্রিম কোর্টের নজরকাড়া রায়

দুর্নীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়লেই দেশের সরকারি কর্মীদের শাস্তি অবধারিত। বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের এক রায়ের পর এই বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে গেল। দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত থাকার বা ঘুষ নেওয়ার প্রত্যক্ষ প্রমাণ নেই বলে অনেক সময় সরকারি কর্মী, সাংসদ-বিধায়করা ছাড় পেয়ে যান। কিন্তু সর্বোচ্চ আদালত নতুন রায়ে জানিয়ে দিয়েছে, প্রত্যক্ষ প্রমাণ ছাড়াই এবার সরকারি কর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া যাবে। এরজন্য পারিপার্শ্বিক তথ্যপ্রমাণ‌ই যথেষ্ট বলে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ

The days of taking bribes by government employees are over

সরকারি কর্মীদের নিয়ে ঠিক কী নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট

1/4: সরকারি কর্মীদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ ক্রমশ বাড়ছে। এমনকি দুর্নীতি দমনে করা যাদের কাজ, সেই পুলিশ, ভিজিল্যান্স, ইডির কর্মীরাও মাঝেমধ্যে দুর্নীতির ঘটনায় জড়িয়ে পড়ছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠলে নিয়মমাফিক তদন্ত হচ্ছে‌ও। কিন্তু প্রত্যক্ষ তথ্যপ্রমাণের অভাবে অনেকসময়ই উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছে না।

2/4: সরকারি কর্মীদের দুর্নীতি নিয়ে এই সমস্যাগুলোর কথা মাথায় রেখেই সর্বোচ্চ আদালত এমন রায় দিয়েছে বলে ধারণা ওয়াকিবহাল মহলের। রায়ে বলা হয়েছে, কোন সরকারি কর্মী দুর্নীতিতে জড়ালে তার আয় বহির্ভূত সম্পত্তিই দুর্নীতির প্রমাণের জন্য যথেষ্ট। এর জন্য তাঁকে ঠিক ঘুষের টাকা নেওয়ার সময় ধরতে হবে এমনটার দরকার নেই। এমনকি কোন‌ও সরকারি কর্মী নিজে টাকা চাইলেন না, কিন্তু কেউ এসে টাকা বা অন্যায় উপহার দিলেন এবং তিনি সেটা নিয়ে নিলেন, তাহলেও ওই সরকারি কর্মীকে দুর্নীতিতে অভিযুক্ত হিসেবেই ধরা হবে।

3/4: সুপ্রিম কোর্টের এই নির্দেশের ফলে দেশের দুর্নীতি দমন অভিযান আরও সাফল্য পাবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে সর্বোচ্চ আদালতের এই রায়ের পর সরকারি কর্মীদের একটা বড় অংশ শঙ্কিত। তাঁদের আশঙ্কা, প্রত্যক্ষ তথ্য-প্রমাণ ছাড়াই দুর্নীতিতে অভিযুক্ত করা যাবে, এই রায়ের পর অন্যায়ভাবে তাঁদের ফাঁসিয়ে দেওয়ার ঘটনা বাড়তে পারে। এদিকে সুপ্রিম কোর্ট স্পষ্ট জানিয়েছে, সরকারি কর্মীদের অবশ্যই স্বচ্ছ হতে হবে। তাদের মধ্যে বিন্দুমাত্র দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেওয়া চলবে না। তা না হলে দেশের সমাজ ও অর্থব্যবস্থা সম্পূর্ণ ভেঙে পড়বে।

4/4: সর্বোচ্চ আদালতের এই রায়ের আওতায় শুধু যে রাজ্য সরকার ও কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মীরা আসবেন তা নয়। সাংসদ-বিধায়করাও এই তালিকার অন্তর্ভুক্ত হবেন। বলতে গেলে সরকারি তকমা পান এমন যে কোনও ব্যক্তিই সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের দ্বারা প্রভাবিত হবেন।

বিঃদ্র: নতুন কোনো চাকরির আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে যুক্ত হয়ে যান। নিচে যুক্ত (Join) হওয়ার লিংক দেওয়া রয়েছে ঐ লিংকে ক্লিক করলেই যুক্ত হয়ে যেতে পারবেন। ওখানেই সর্বপ্রথম আপডেট দেওয়া হয়। আর আপনি যদি অলরেডি যুক্ত হয়ে থাকেন এটি প্লিজ Ignore করুন। 

Important Links:  👇👇
কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপে জয়েন হোনClick Here
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇 

🎯 অষ্টম শ্রেণি পাশে দুর্নীতি করে প্রাইমারি শিক্ষকের চাকরি

🎯 রাজ্যের মডেল স্কুলে গ্রুপ-ডি পদের চাকরি

🎯 এমনটা করলে গ্রামের স্কুল গুলো ফাঁকা হয়ে যাবে- মন্তব্য বিচারপতির