রাজ্যের প্রায় ২৯ হাজার চাকরিপ্রার্থীর ভবিষ্যৎ নির্ভর করবে মঙ্গলবারের শুনানির উপর

মধ্যরাতের পুলিশি অভিযান জোর করে থামিয়ে দিয়েছিল তাঁদের আন্দোলন। ২০ অক্টোবর মধ্যরাতে সল্টলেকে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অফিস আচার্য সদনের সামনে থেকে যেভাবে টেট পাশ আন্দোলনকারীদের তুলে দেওয়া হয়েছিল তা নিয়ে প্রভূত বিতর্ক হয়েছে। এই নিয়ে রাজ্যজুড়ে আন্দোলনেও নেমেছে বিরোধীরা। কিন্তু প্রশ্ন হল এই আন্দোলনের ভবিষ্যৎ কী? তা কি ফের শুরু হবে?

এককথায় এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়া খুব কঠিন। কারণ ২০১৪ ও ২০১৭ এর টেট পাশরা চাকরির দাবিতে যে আন্দোলন শুরু করেছিল তা ফের শুরু হবে কিনা পুরোটাই নির্ভর করছে আদালতের উপর। সেক্ষেত্রে আদালতের রায় পক্ষে এলে প্রাথমিকের নিয়োগ প্রক্রিয়া চলাকালীন‌ই ফের আন্দোলনে উত্তাল হয়ে উঠতে পারে রাজ্য।

The future of 29000 job seekers in the state will depend on Tuesday's hearing

আদালতের উপর TET পাশেদের আন্দোলনের ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে?

২০ অক্টোবর মধ্যরাতে পুলিশি অভিযান ঝাঁপিয়ে পড়ে টেট পাশদের আন্দোলন তুলে দেওয়ার সময়‌ই কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন আন্দোলনকারীদের আইনজীবীরা। তাঁরা অনশন আন্দোলন সল্টলেকে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অফিসের সামনেই চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি চান।

সেইসঙ্গে ১৪৪ ধারা কতটা অঞ্চলজুড়ে আছে তাও পরিস্কার করে জানানোর আবেদন রাখা হয়। গত ২৮ অক্টোবর কলকাতা হাইকোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হ‌ওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আদালত জানায় টেট আন্দোলনকারীদের দায়ের করা মামলা নিয়মিত বেঞ্চে‌ই শুনানি হবে। 

২৯ হাজার চাকরিপ্রার্থীর ভবিষ্যৎ নির্ভর করবে মঙ্গলবার

হাইকোর্টের শেষ নির্দেশ অনুযায়ী আগামী মঙ্গলবার বিচারপতি অজয় কুমার মুখোপাধ্যায় ও বিচারপতি অমৃতা সিনহার ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার শুনানি শুরু হবে। এই মামলার রায়ের উপর বহু প্রত্যাশা নিয়ে তাকিয়ে আছেন ২০১৪ এর টেট পাশ ‘নন ইনক্লুডেড’ ও ২০১৭ এর টেট পাশ প্রায় ২৯ হাজার চাকরিপ্রার্থী। কারণ নুন্যতম আন্দোলন-লড়াইটুকু লড়তে না পারলে তাঁদের বেশিরভাগের কাছেই যে চাকরির স্বপ্ন অধরাই থেকে যাবে তা একরকম স্পষ্ট।

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অফিস আচার্য সদনের সামনে টেট পাশদের আন্দোলন তোলা নিয়ে আর‌ও একটি বিতর্ক আছে। আন্দোলনকারীদের দাবি হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চের রায় মেনে তাঁরা পর্ষদ কার্যালয়ের সামনে যে এলাকাজুড়ে ১৪৪ ধারা জারি আছে, তার বাইরে বসেছিলেন। তাও পুলিশ ভয়ঙ্কর বলপ্রয়োগ করে তাঁদের আন্দোলন ভেস্তে দেয়। বহু আন্দোলনকারী অসুস্থ হয়ে পড়েন।

উল্লেখ্য, প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ ১১ হাজার ৭৬৫ জন প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করলে এই আন্দোলন শুরু হয়। টেট পাশদের দাবি- এর আগে পর্ষদের অনিয়ম, দুর্নীতির কারণেই তাঁরা চাকরি পাননি। তাই এবার তাঁদের সবাইকে সরাসরি নিয়োগ করতে হবে।

Important Links:  👇👇

কাজকর্ম Whatsapp গ্রুপে জয়েন হোন- Click Here

✅ Telegram Channel: Click Here

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

🎯 প্রাইমারি টেটের বিষয় ভিত্তিক মডেল প্রশ্নপত্র

🎯 মাধ্যমিক পাশে গোয়েন্দা দপ্তরে গ্রুপ-C পদে চাকরি 

🎯 প্রাইমারি টেটে আজ পর্যন্ত রেকর্ড সংখ্যায় আবেদন জমা পড়ল?

🎯 ১৫ হাজার টাকা বেতনে রাজ্যের জেলায় মহিলাদের জন্য চাকরি