নতুন কর্মসংস্থান: বদলানো হচ্ছে বাংলার স্বাস্থ্য কাঠামো, হতে চলেছে বিপুল পরিমান চাকরি

1/6: রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবার উন্নতির জন্য একগুচ্ছ পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। এতে পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য পরিষেবার হালচাল যেমন সম্পূর্ণ বদলে যাবে তেমনই তৈরি হবে নতুন কর্মসংস্থান। এর জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকার ৩ হাজার ৮০০ কোটি টাকার একটি বৃহৎ প্রকল্প হাতে নিয়েছে।

2/6: সোমবার নবান্নের স্বাস্থ্য বিষয়ক একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকের পর জানা যায় জনস্বাস্থ্য ব্যবস্থা আরও বিস্তৃত করতে ‘সুস্বাস্থ্যকেন্দ্র’ তৈরি করা হবে। এর মাধ্যমে আমজনতা পাড়ায় পাড়ায় আউটডোরে চিকিৎসককে যেমন দেখাতে পারবেন, তেমনই এই সুস্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলিতে ক্যান্সার, ডায়াবেটিস, হাইপার টেনশনের মতো বর্তমান সময়ের গুরুত্বপূর্ণ অসুখগুলির বিনামূল্যে স্ক্রিনিংও করা যাবে।

The health structure of Bengal is being changed, there is going to be a huge amount of recruitment

3/6: ২০২৫-২৬ সালের মধ্যে রাজ্যজুড়ে ১৬ হাজার ৬১৬ টি সুস্বাস্থ্যকেন্দ্র গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি (Mamata Banerjee)। এর মধ্যে ২০২৩ সালের মধ্যেই ১০ হাজার ১৭৩ টি সুস্বাস্থ্যকেন্দ্র তৈরি করে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নবান্ন।

4/6: জনস্বাস্থ্য চিকিৎসা পরিকাঠামোয় আশা কর্মীদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আছে। সুস্বাস্থ্যকেন্দ্র গড়ে উঠলে তাঁদের কাজের পরিমাণ ও দায়িত্ব আরও বাড়বে। বিষয়টি মাথায় রেখে রাজ্য সরকার ঠিক করেছে, বাংলায় আশা কর্মীর সংখ্যা ৫৬,৯১৮ থেকে বাড়িয়ে ৭৩,৯৬১ করবে। এর জন্য নতুন ১০ হাজার শূন্য পদ তৈরির সিদ্ধান্ত‌ও নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি বর্তমানে আশা কর্মীদের যে শূন্য পদ আছে তাও দ্রুত পূরণ করা হবে বলে জানিয়েছে নবান্ন।

5/6: তবে রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিকাঠামাকে ঢেলে সাজাতে শুধু সুস্বাস্থ্যকেন্দ্রের উপর ভরসা করছে না সরকার। এর জন্য নতুন আরও ৩৪২ টি ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৮২ টি আগামী বছরই চালু হয়ে যাবে। এদিকে করোনা মহামারী থেকে শিক্ষা নিয়ে বিপদ মোকাবিলায় আগাম পরিকাঠামো প্রস্তুত রাখা সিদ্ধান্ত নিয়েছে নবান্ন। এর জন্য প্রতিটি জেলায় নতুন করে ‘ক্রিটিকাল কেয়ার ব্লক’ (Critical Care Block) তৈরি করা হবে।

6/6: পশ্চিমবঙ্গের ২২ টি জেলার মধ্যে ছটি জেলায় ১০০ শয্যার ক্রিটিকাল কেয়ার ব্লক এবং বাকি ১৬ টি জেলায় ৫০ শয্যার ক্রিটিকাল কেয়ার ব্লক গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ডিসেম্বর থেকেই এর কাজ শুরু হয়ে যাবে। এছাড়াও রোগ নির্ণয়ের প্রধান হাতিয়ার আধুনিক নমুনা পরীক্ষাকেন্দ্র‌ও ২৩ টি তৈরি করবে রাজ্য স্বাস্থ্য দফর। এর কাজ ২০২৩ এর মধ্যেই সেরে ফেলতে চাইছে তারা।

বিঃদ্র: নতুন কোনো চাকরির আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে যুক্ত হয়ে যান। নিচে যুক্ত (Join) হওয়ার লিংক দেওয়া রয়েছে ঐ লিংকে ক্লিক করলেই যুক্ত হয়ে যেতে পারবেন। ওখানেই সর্বপ্রথম আপডেট দেওয়া হয়। আর আপনি যদি অলরেডি যুক্ত হয়ে থাকেন এটি প্লিজ Ignore করুন। 

Important Links:  👇👇
কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপে জয়েন হোনClick Here
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

🎯 রাজ্যের রামকৃষ্ণ মিশন স্কুলে গ্রুপ-D নিয়োগ

🎯 কৃষি এবং কিষান কল্যান দপ্তরে চাকরি

🎯 মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক টেস্ট পরীক্ষায় বসল না অনেকে