গরুর মাংস রান্না নিয়ে প্রশ্ন করা হল পরীক্ষায়, বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটিতে এই নিয়ে অস্থির পরিস্থিতি

শিক্ষাক্ষেত্রে ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা ও সাম্প্রদায়িক মনোভাব ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ছে ভারতবর্ষ-জুড়ে। সেখানে বিষয়, জ্ঞান, তথ্য এইসব কোন‌ও গুরুত্ব পারছে না। পান থেকে চুন খসলেই ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত দেওয়ার কথা বলে ঝাঁপিয়ে পড়ছে ছাত্রছাত্রী থেকে শুরু করে শিক্ষক সমাজের একাংশ।

আর তাতে ইন্ধন দেওয়ার জন্য বাইরে থেকে রাজনৈতিক দলগুলো তো আছেই। এই যেমন উত্তরপ্রদেশের বারানসীর ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটিতে সম্প্রতি শুরু হয়েছে প্রশ্নপত্র বিতর্ক। সেখানকার হোটেল ম্যানেজমেন্ট কোর্সের পরীক্ষায় গরুর মাংস রান্না নিয়ে দুটি প্রশ্ন এসেছিল। আর তা নিয়েই ঝামেলা শুরু হয়েছে দেশের এই প্রথম সারির বিশ্ববিদ্যালয়টিতে।

The test asked questions about cooking beef

ঠিক কী নিয়ে বিতর্ক?

বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটির মতো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের হোটেল ম্যানেজমেন্ট কোর্সের মান বিশ্ব পর্যায়ের সমতুল্য হবে এটাই স্বাভাবিক। ফলে সেখানে ছাত্র-ছাত্রীদের বিশ্ববাজারে চাকরির জন্য যোগ্য হিসেবেই গড়ে তোলার চেষ্টা হবে। আর তিক্ত বাস্তব হল ভারতবর্ষ ও নেপালের বাইরে বাকি বিশ্বজুড়ে সমস্ত বড় বড় রেঁস্তোরায় গরুর মাংসের তৈরি বিভিন্ন পদের চাহিদা ব্যাপক। ফলে এই সমস্ত জায়গায় হোটেল ম্যানেজমেন্ট পাস ছাত্র-ছাত্রীদের চাকরি করতে হলে গো-মাংসের বিভিন্ন রেসিপি সম্পর্কে তাদের ওয়াকিবহাল থাকতে হবে। সেই কথা ভেবেই পরীক্ষায় গরুর মাংসের তৈরি পদের উপর দুটি প্রশ্ন করা হয়েছিল।

কিন্তু এই প্রশ্ন নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক। বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটির হিন্দুত্ববাদী শিবিরের দাবি, এই প্রশ্নের মাধ্যমে তাদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করা হয়েছে। তারা হোটেল ম্যানেজমেন্ট কোর্সে এই সংক্রান্ত প্রশ্নের প্রয়োজনীয়তা, বিশ্ব বাজারের চাহিদার কথা এইসব মানতে রাজি নয়।

প্রশ্ন করার কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদ থেকে সুধীরকুমার জৈনের ইস্তফার দাবি জানিয়েছে। এমনকি এই বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দফতরের‌ও দারস্থ হয়েছেন বিক্ষুব্ধ ছাত্রছাত্রীরা। এই প্রতিবাদে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের একাংশকেও পাশে পেয়েছে।

হোটেল ম্যানেজমেন্টের প্রশ্নপত্রে গরুর মাংসের রেসিপি নিয়ে প্রশ্ন আসার প্রতিবাদে সামিল আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন, অবিলম্বে বিষয়টির নিষ্পত্তি না হলে তাঁরা বৃহত্তর আন্দোলনের পথে হাঁটবেন। এদিকে এই নিয়ে ক্ষোভের কথা বলতে গিয়ে আন্দোলনকারীরা পরিষ্কার জানিয়েছে, গত ইফতারের সময় উপাচার্য কেন তাতে যোগ দিয়েছিলেন তার উত্তর‌ও দিতে হবে। অর্থাৎ, সবমিলিয়ে বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটির মতো দেশের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অসহিষ্ণুতার ছাপ স্পষ্ট।

👍 আমাদের ‘টেলিগ্রাম চ্যানেলে’ যুক্ত হতে চাইলে নিচে ক্লিক করুন, এখানে সর্প্রথম আপডেট দেওয়া হয়। 

Join Kajkarmo Telegram.jpeg

🔥 আরো আপডেট 👇👇

🎯 অনেক শূন্যপদে ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশনে লোক নিয়োগ

🎯 B.Ed পাশেরা কি প্রাইমারি টেট দিতে পারবে?

🎯 মাধ্যমিক পাশে রেলের সরকারি সংস্থায় চাকরির সুযোগ