চাকরি পরীক্ষার নম্বর চুরি, আদালতের কড়া পদক্ষেপ! ১৪ নভেম্বরের অপেক্ষায় চাকরিপ্রার্থীরা

রাজ্যের শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে দুর্নীতি ও অনিয়মের যেন শেষ নেই। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ হোক আর এস‌এসসি (SSC), উভয়েরই নিত্যনতুন কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে রায় দিয়েই চলেছে কলকাতা হাইকোর্ট (Kolkata High Court)। এবার এস‌এসসি কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে চাকরিপ্রার্থীদের ‘নম্বর’ চুরির অভিযোগ উঠল। এই ঘটনায় ব্যাপক শোরগোল পড়ে গিয়েছে। 

theft-of-slst-exam-marks

কীভাবে হল চাকরি পরীক্ষার নম্বর চুরি?

২০১৬ সালের নবম-দশমের নিয়োগের জন্য আয়োজিত এস‌এল‌এসটি (SLST Exam) পরীক্ষার ইতিহাস প্রশ্ন নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়। ইতিহাসের দুটি প্রশ্ন ভুল আছে দাবি করে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন পরীক্ষার্থীদের একাংশ। বিষয়টি বিচারপতি রাজাশেখর মান্থার এজলাসে ওঠে। তিনি এই ভুল প্রশ্নের জন্য মামলাকারী চাকরিপ্রার্থীদের অতিরিক্ত দুই নম্বর দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন। সেইসঙ্গে উত্তরপত্র দেখাতে হবে বলেও এস‌এসসিকে জানান।

কিন্তু কলকাতা হাইকোর্টের এই নির্দেশ এস‌এসসি মানেনি বলে অভিযোগ উঠেছে। মামলাকারীদের অভিযোগ, গত সেপ্টেম্বর মাসে তাঁদের ফোন করে এস‌এসসি কার্যালয়ে ডেকে পাঠানো হয়। সেখানে একটা সাদা কাগজে লিখে আনা নম্বর রোল নম্বর উল্লেখ করে পড়ে শুনিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু আদালতের নির্দেশ মেনে উত্তরপত্র বা ওএম‌আর শিট দেখায়নি এস‌এসসি। এই ঘটনার পর‌ই ফের কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন ওই মামলাকারীরা। তাঁদের অভিযোগ, এস‌এসসি ও মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ‘নম্বর’ চুরি করেছে। তাই আদালতের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও উত্তরপত্র দেখায়নি।

বৃহস্পতিবার মোট ১১ জন এস‌এল‌এসটি পরীক্ষার্থীর দায়ের করা মামলাটি কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসুর এজলাসে ওঠে। মামলাকারীদের আইনজীবীর কাছে সব শুনে কার্যত অবাক হয়ে যান বিচারপতি। আদালতের নির্দেশের পরেও এস‌এসসি ও মধ্যশিক্ষা পর্ষদ কেন সেই নির্দেশ শুনল না এই নিয়ে বিপর্যয় প্রকাশ করেন তিনি। এরপরই কড়া নির্দেশ দেন বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু।

বিচারপতি মামলাকারীদের প্রাপ্ত নম্বরের পুরো বিভাজন জানতে চেয়েছেন। আগামী ১০ দিনের মধ্য ওই ১১ জন পরীক্ষার্থীর প্রাপ্ত নম্বর, ভুল প্রশ্নের জন্য তাঁরা কত করে নম্বর পেয়েছেন সবকিছু এস‌এসসি ও মধ্যশিক্ষা পর্ষদকে হলফনামা দিয়ে বিচারপতি জানাতে বলেছেন। প্রয়োজন মনে করলে তিনি ওই ১১ জনের আসল খাতাও চেয়ে পাঠাতে পারেন।

আগামী ১৪ নভেম্বর এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে। ‌কিন্তু আদালতের নির্দেশের পরেও নম্বর নিয়ে এস‌এসসির এই লুকোচুরি নতুন করে প্রশ্ন তুলে দিল।

বিঃদ্র: নতুন কোনো চাকরির আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে যুক্ত হয়ে যান। নিচে যুক্ত (Join) হওয়ার লিংক দেওয়া রয়েছে ঐ লিংকে ক্লিক করলেই যুক্ত হয়ে যেতে পারবেন। ওখানেই সর্বপ্রথম আপডেট দেওয়া হয়। আর আপনি যদি অলরেডি যুক্ত হয়ে থাকেন এটি প্লিজ Ignore করুন। 

Important Links:  👇👇
কাজকর্ম Whatsapp গ্রুপে জয়েন হোন:Click Here
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

🎯 সরাসরি ইন্টারভিউ দিয়ে 25 হাজার টাকা বেতনের চাকরি

🎯 সীতারাম জিন্দাল স্কলারশিপ, আবেদন করার ফর্ম 

🎯 বরখাস্ত ২৬৯ প্রাইমারি শিক্ষক পেল লাইনলাইন