প্রাইমারি টেটের ফর্ম ফিলাপে বহু ভুল! সংশোধন করা যাচ্ছে না, তবে একটি পথ খোলা আছে!

টেট পরীক্ষা 2022 এর ফর্ম ফিলাপ পর্ব বলতে গেলে মাঝপথে। এরই মধ্যে কয়েক লক্ষ ছেলেমেয়ে পরীক্ষায় বসার জন্য অনলাইনে ফর্ম ফিলাপ করে ফেলেছে। কিন্তু দেখা যাচ্ছে তাদের অনেকেই তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে বিভিন্ন ভুল করে ফেলেছে ফর্ম ফিলাপের সময়।

ফলে আগামী ১১ ডিসেম্বর এই বছরের টেট পরীক্ষায় তারা বসতে পারবে কিনা তাই নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। এমনকি পরীক্ষায় বসলেও পরবর্তীকালে এই ভুল চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে মারাত্মক সমস্যা তৈরি করতে পারে বলে বিশেষজ্ঞদের অনেকের আশঙ্কা।

There are many mistakes in primary TET form filling But there is a way open

কী কী ভুল করেছেন আবেদনকারীরা?

গত ১৪ অক্টোবর থেকে অনলাইনে এবছরের টেট পরীক্ষার ফর্ম ফিলাপের পর্ব শুরু হয়েছে। চলবে আগামী ৩ নভেম্বর পর্যন্ত। পরের দিকে ওয়েবসাইটের সার্ভারে সমস্যা হতে পারে আশঙ্কা করে অনেকেই আগেভাগে ফর্ম ফিলাপ করেছেন। কিন্তু ভালো করে পর্ষদের নির্দেশিকা না পড়ার ফলে কেউ ভুল জন্ম তারিখ দিয়েছেন, আবার অনেকেই শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য এবং সেই সংক্রান্ত ডকুমেন্ট সাবমিট করতে ভুল করেছেন।

পরে বিষয়টি নজরে আসায় মাথায় হাত পড়ার জোগাড় পরীক্ষার্থীদের। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ সূত্রে খবর, এইরকম ভুল করার সংখ্যা অনেক। ফলে ভবিষ্যতে এই নিয়ে বড়সড় বিতর্ক তৈরি হতে পারে। এই অবস্থায় টেট পরীক্ষার্থীদের কথা ভেবে ভুল সংশোধনের সুযোগ দেওয়ার বিষয়ে চিন্তাভাবনা শুরু করেছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

কিন্তু পরীক্ষার আর বেশি দিন বাকি না থাকায় সমস্ত ভুল সংশোধনের বদলে নির্দিষ্ট কয়েকটি ক্ষেত্রে ত্রুটি ঠিক করে নেওয়ার সুযোগ দিতে পারে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। ঘটনা হল, অতীতে পরীক্ষার্থীরা প্রথমে ফর্ম ফিলাপের সময় ভুল করলে পরে তা ঠিক করে নিতে পারতো। কিন্তু এবারে এখনও পর্যন্ত সেই অপশন দেওয়া হয়নি।

ভুল হলে একটি বিকল্প পথ খোলা আছে

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ ভুল সংশোধনের সুযোগ দেবে কিনা তা এখনও নিশ্চিত নয়। তবে চিন্তায় না থেকে আরও একটি বিকল্প পথ খোলা আছে টেট পরীক্ষার্থীদের সামনে। সেক্ষেত্রে নতুন মোবাইল নম্বরনতুন ই-মেল অ্যাড্রেস তৈরি করে আবার অনলাইনে ফর্ম ফিলাপ করতে হবে।

এক্ষেত্রে সমস্ত তথ্য সঠিকভাবে দেওয়া হল কিনা সাবমিট করার আগে দেখে নেওয়া প্রয়োজন। এক্ষেত্রে আরেকটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে, নতুন করে ফর্ম ফিলাপ করলে নতুন করে অ্যাপ্লিকেশন ফি জমা দিতে হবে। অর্থাৎ এই বিকল্প পথে ভুল সংশোধন করে নিতে গেলে দ্বিতীয়বার টাকা খরচ করতে হবে টেট পরীক্ষার্থীদের।

প্রকৃত শূন্যপদের সংখ্যা অনেক কম

নতুন করে টেট পরীক্ষার পাশাপাশি রাজ্যের প্রাথমিক স্কুলগুলিতে শূন্য পদ ভর্তির কাজও প্রায় একইসঙ্গে চলছে। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী শূন্য পদের সংখ্যা ১১ হাজার ৭৬৫ টি

কিন্তু ভালো করে পর্ষদের বিজ্ঞপ্তি খুঁটিয়ে দেখলে দেখা যাবে প্রকৃত শূন্য পদ ৫,৬০০ জনের মতো। ২০১৪ ও ২০১৭ এর টেট পাসদের মধ্য থেকে এই শূন্য পদেই নিয়োগ হবে। বাকি পদগুলিতে পার্শ্বশিক্ষক, প্রাক্তন সেনা কর্মীসহ অন্যান্য এক্সেম্পটেড ক্যাটাগরিতে নিয়োগ করা হবে। সবমিলিয়ে প্রকৃত শূন্য পদের সংখ্যা অনেক কম হওয়ায় চিন্তা বেড়েছে চাকরিপ্রার্থীদের।

Important Links:  👇👇

কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপে জয়েন হোন- Click Here

▶️ প্রতিদিনের চাকরির আপডেটঃ Job Update

👍চাকরি ও কাজের আপডেট মিস না করতে চাইলে আমাদের ‘টেলিগ্রাম চ্যানেলে’ যুক্ত হয়ে যান

Join Kajkarmo Telegram.jpeg

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

🎯 প্রাইমারি টেট নিয়োগ সত্যিই হবে তো?

🎯 দেশের সবথেকে বড়ো ব্যাংকে 1400 কর্মী নিয়োগ

🎯 কোলকাতা পুলিশে বিভিন্ন গ্রুপ-C পদে চাকরি