WBSSC IX-X Teacher Recruitment: রাজ্যে শুরু হলো SSC নবম-দশম শ্রেনির শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া, 13 হাজারেরও বেশি শূন্যপদ

বাংলার উচ্চশিক্ষিত ছেলে-মেয়েদের কাছে সরকারি স্কুল কলেজে শিক্ষকের চাকরি সবসময়ই প্রাধান্য পেয়ে এসেছে। সেই চাকরিতে দুর্নীতি, বেআইনি নিয়োগের অভিযোগ ওঠায় মাঝে একটা বড় সময় নিয়োগ বন্ধ ছিল। তবে দীর্ঘ টালবাহানা শেষে অবশেষে আশার আলো দেখা যাচ্ছে। শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর, খুব দ্রুত নবম-দশম স্তরের অর্থাৎ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু করা হবে।

WBSSC IX-X 13842 Teacher Recruitment Update

WBSSC IX-X 13842 Teacher Recruitment Update

শূন্য পদ কত, কবে নিয়োগ হবে?

মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সূত্রের খবর, মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষক পদে এই মুহূর্তে শূন্য পদের সংখ্যা ১৩,৮৪২। আপাতত এই পদেই নিয়োগ করা হবে। নিয়ম মেনে স্কুল সার্ভিস কমিশন, অর্থাৎ এসএসসির মাধ্যমে এই নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হবে। এই মুহূর্তে এই নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ের বিভিন্ন মন্ত্রকের অভ্যন্তরীণ আইনি বিষয়গুলি দ্রুততার সঙ্গে সেরে ফেলার কাজ চলছে। তবে দুর্গাপুজোর আগে এই নিয়ে প্রকাশ্যে কোন‌ও কিছু সরকারের তরফ থেকে জানানো হবে না বলেই জানা গিয়েছে।

মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সূত্রের খবর, পুজো মিটে যাওয়ার পর এস‌এসসির পক্ষ থেকে এই নিয়োগ নিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। নিয়ম মেনে এসসি, এসটি, ওবিসিদের জন্য সংরক্ষণ থাকবে। এই বিষয়ে তফসিলি জাতি, উপজাতি ও অনগ্রসর শ্রেণী কল্যাণ দফতরের কাছে রোস্টার চেয়ে পাঠিয়েছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ।

রোস্টার কী?

আইন অনুযায়ী যে কোন‌ও সরকারি চাকরিতে তফসিলি জাতি, তফসিলি উপজাতি এবং ওবিসি(এ) ও ওবিসি(বি) ক্যাটাগরির জন্য সংরক্ষণ ব্যবস্থা থাকে। কিন্তু এই সংরক্ষণের প্রক্রিয়া খুব একটা সরল নয়। এলাকাভিত্তিক জনসংখ্যার বিন্যাসের উপর ভিত্তি করে এই সংরক্ষণের হার কমবেশি হয়। আবার মুখ হিসেবেও সংরক্ষণের সংখ্যাকে একটি নির্দিষ্ট গণ্ডির মধ্যে বেঁধে রাখার দরকার পড়ে। আর এই গোটা কাজটাই তফসিলি জাতী-উপজাতি এবং অনগ্রসর শ্রেণী কল্যাণ দফতরের পরামর্শ মেনে করা হয়। এই হিসেবটাকেই সরকারি পরিভাষায় বলা হয় রোস্টার তৈরি।

অর্থাৎ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষক নিয়োগের জন্য প্রাথমিক স্তরের কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। এবার দুর্গাপুজোটা গেলেই বিজ্ঞপ্তি বেরোবে।

শিক্ষক পদে আর‌ও নিয়োগ

শুধু মাধ্যমিক স্তরের ১৩,৮৪২ জন শিক্ষক নিয়োগ নয়, বিভিন্ন স্তরের আরও শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের স্কুল শিক্ষা দফতর। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল মিলিয়ে রাজ্যে এই মুহূর্তে ২৩২৫ জন প্রধান শিক্ষকের পদ ফাঁকা আছে। পুজো মিটলে এই পদেও দ্রুত নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি বের করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এছাড়াও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পরই উচ্চমাধ্যমিক স্তরের শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারির বিষয়ে ভাবনাচিন্তা শুরু হয়েছে সরকারি স্তরে।

👍চাকরি ও কাজের আপডেট মিস না করতে চাইলে আমাদের ‘টেলিগ্রাম চ্যানেলে’ যুক্ত হয়ে যান

Join Kajkarmo Telegram.jpeg

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

🎯 কলকাতা NUHM সোসাইটিতে 186 শূন্যপদে চাকরি

🎯 মিনি রত্ন প্রোজেক্টে চাকরির বিজ্ঞপ্তি

🎯 রাজ্যে বন্ধ হলো সরকারি চাকরির গুরুত্বপূর্ণ এই সুবিধা