2014 TET Pass: দশ বছর পর ইন্টারভিউ, এই ৪ জন টেট পাশ প্রার্থীকে ডাকতে বলল হাইকোর্ট

After ten years of interviews, the High Court asked these 4 Tate pass candidates to be called

ফের নজরে 2014 এর টেট। কলকাতা হাইকোর্ট, রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদকে নির্দেশ দিল গত 2014 সালের প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা টেট পাশ করেও যে সব প্রার্থীরা ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাক পাননি, সেই প্রার্থীদের ইন্টারভিউ নেওয়ার জন্য।

ঘটনার সূত্রপাত 2014 সালে। 2014 সালের টেট পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয় 2015 সালে। পরীক্ষার ফল প্রকাশ হবার পরে দেখা যায়, 4 জন প্রার্থী টেট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারেননি। তবে 2014 সালের টেট প্রশ্ন পত্রে, 6 টি প্রশ্ন ভুল আছে এই মর্মে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয় কলকাতা হাইকোর্টে। হাইকোর্টের তরফে এরপর বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করে আদালত। ওই কমিটির দেওয়া রিপোর্টের ভিত্তিতে জানা যায়, 6 টি প্রশ্ন ভুল ছিল।

বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায় 6 নম্বর করে দেওয়ার নির্দেশ দেন মামলাকারীদের। এরপরে ফের কিছু প্রার্থী সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়ের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চের দ্বারস্থ হন। পরীক্ষার্থীদের দাবি ছিল, কেবলমাত্র মামলাকারীরা কেন নম্বর পাবে? টেট পরীক্ষার সকল পরীক্ষার্থীকেই নম্বর দিতে হবে। এই মামলা বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডনের ডিভিশন বেঞ্চে গিয়ে ওঠে। তবে বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডনের ডিভিশন বেঞ্চ ওই মামলা খারিজ করে দেওয়ার ফলে প্রার্থীরা ফের সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন।

সুপ্রিম কোর্ট মামলাটি কলকাতা হাইকোর্টের ফেরত পাঠিয়ে দেয়। বিচারপতি সুব্রত তালুকদারের ডিভিশন বেঞ্চের তরফে পর্ষদকে নির্দেশ দেওয়া হয়, ওই 6 টি ভুল প্রশ্নের জন্য প্রত্যেক পরীক্ষার্থীকে বাড়তি নম্বর দিতেই হবে।

এদিকে, বাড়তি 6 নম্বর পাওয়ার পর ওই 4 জন পরীক্ষার্থীও টেট পাশ করেন। কিন্তু, পাশ করেও ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাক পাচ্ছেন না, এই অভিযোগে ওই প্রার্থীরা কলকাতা হাইকোর্টে ফের একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার শুনানিতে হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়, মামলাকারী ওই 4 জন প্রার্থীর আলাদা করে ইন্টারভিউ নেওয়ার জন্য পর্ষদকে নির্দেশ দিয়েছেন।

এই মামলা নিয়ে মামলাকারীদের আইনজীবীদের বক্তব্য, 2014 সালে মোট শূন্যপদ ছিল 49 হাজার এবং মাত্র 11 হাজার প্রশিক্ষিত প্রার্থী ছিলেন। উক্ত 4 জন প্রার্থীই প্রশিক্ষিত ছিলেন। তাই বাড়তি 6 নম্বর পেয়ে আগে পাশ করলে, এতদিনে তাদের চাকরি হয়ে যেত। তবে, আদালতের মন্তব্যে খুশি প্রার্থীরা। পর্ষদ অবিলম্বে ইন্টারভিউ নেওয়ার বন্দোবস্ত করুক, এটাই চাইছেন ওই পরীক্ষার্থীরা।


বিঃদ্রঃ চাকরি এবং নতুন কোনো নিয়োগের আপডেট, কর্মসংস্থান আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে জয়েন হোন।

🔥 হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ: Join Now

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

👉 ৫১১৮ শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি, ৮ মার্চ অবধি আবেদন চলবে

👉 ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে ক্লার্ক পদে নিয়োগ, মাসিক বেতন ১২ হাজার টাকা

👉 রাজ্যের কোর্টে গ্রুপ-ডি চাকরির বিজ্ঞপ্তি, মাধ্যমিক পাশ শিক্ষাগত যোগ্যতা

👉 স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ইন্সপেক্টর পদে নিয়োগ, ১৩ মার্চ পর্যন্ত আবেদন চলবে

👉 প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগের প্যানেল কেন প্রকাশিত হচ্ছে না? এ কী কথা বললেন পর্ষদ সভাপতি গৌতম পাল

Previous articleরাজ্যে পাড়া লিগ্যাল ভলেন্টিয়ার্স পদে চাকরির বিজ্ঞপ্তি, লিখিত পরীক্ষা ছাড়াই নিয়োগ
Next articleWBPSC গ্রুপ-সি ও গ্রুপ-ডি নিয়োগ নিয়ে হাইকোর্টে মামলার আপডেট

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here