স্বপ্নের চাকরি IAS-এর বেতন কত জানেন? এইসব কারনেই চাকরির জন্য সবাই পাগল!

ভারতের সবচেয়ে গ্ল্যামারাস সরকারি এবং স্বপ্নের চাকরি হল (Dream Job) সিভিল সার্ভেন্টের চাকরি। UPSC বা ইউনিয়ন পাবলিক সার্ভিসের পরীক্ষায় পাস করে IAS, IPS, IFS-এর মতো বিভিন্ন ধরনের সিভিল সার্ভিস অফিসার হওয়া যায়। যারা এই সিভিল সার্ভিস অফিসার হন তাঁদের চাকরি ক্ষেত্রে মর্যাদা যেমন তুঙ্গে থাকে, তেমনই গোটা জীবন বিপুল পরিমাণ বেতন পেয়ে থাকেন। যার ফলে চাকরি করেই জীবনের বহু শখ পূরণ করা সম্ভব হয়।

সিভিল সার্ভিস অফিসারদের ক্ষেত্রে বাস্তব সত্য হল, বর্তমান ভারতবর্ষকে প্রকৃতপক্ষে তাঁরাই চালাচ্ছেন। এই উচ্চপদস্থ সরকারি আধিকারিকদের ব্যুরোক্র্যাট বা আমলা বলা হয়। কেন্দ্রীয় সরকার হোক বা রাজ্য সরকার, মন্ত্রিসভা বর্তমানে শুধুমাত্র নীতিগত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। কিন্তু সেগুলোকে বাস্তবে রূপ দেওয়া, সঠিক পথে পরিচালনা করার পুরো কাজটাই এই আইএএস, আইপিএস অফিসারদের কাজ। এমনকি বহু ক্ষেত্রে বিশেষত আইএএস অফিসারদের ছকে দেওয়া নীল নকশা মেনেই চলেন মন্ত্রীরা।

Dream Job IAS Salary Know How Much

স্বাভাবিকভাবেই বোঝা যাচ্ছে শুধু গ্ল্যামার বা বিপুল বেতন নয়, আইএএস অফিসারদের প্রভাবও ব্যাপক। এখন প্রশ্ন হল কী করলে এই চাকরি পাওয়া যাবে?

কীভাবে IAS অফিসার হওয়া যায়? 

ইউপিএসসি (UPSC) পরীক্ষা হল অত্যন্ত কঠিন অথচ মর্যাদা সম্পন্ন একটি পরীক্ষা। এই পরীক্ষাতে পাস করেই আইএএস (IAS), আইপিএস (IPS) অফিসার হতে হয়। এর জন্য দীর্ঘদিনের প্রস্তুতি প্রয়োজন। ন্যূনতম স্নাতক না হলে ইউপিএসসি পরীক্ষায় বসার সম্ভাব নয়।

এই পরীক্ষায় প্রথমে প্রিলিমিনারি পর্ব হয়। তাতে পাস করলে মেনস-এ বসতে হবে। তাতেও পাশ করলে মেধা তালিকায় আপনার নাম উঠবে। এরপর আসে চূড়ান্ত ইন্টারভিউ পর্ব। বহু সফল পরীক্ষার্থী এই ইন্টারভিউ পর্বে এসে ছিটকে যান। কারণ এই পর্বেই দেখা হয়, ভাল পড়াশোনার পাশাপাশি সিভিল সার্ভেন্ট হিসেবে জনসেবা করা, মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আপনার কতটা মানসিকতা আছে।

সেই সঙ্গে কঠিন প্রশাসনিক বিষয়গুলি সামলানোর মতো মানসিক জোর আপনার আছে কিনা সেটাও বিচার করে দেখে ইন্টারভিউ বোর্ড। এই পর্ব বেরোতে পারলেই কেল্লাফতে।ইন্টারভিউ পর্বের পর উত্তীর্ণদের নির্দিষ্ট সময়ের ট্রেনিং দেওয়া হয়। এরপর একজন আইএএস অফিসার চাকরিজীবনের শুরুতেই সবচেয়ে ন্যূনতম স্তর মহকুমাশাসকের দায়িত্ব পান।

নির্দিষ্ট সময় সেখানে কাটানোর পর জেলাশাসক হন তাঁরা। এর পরের ধাপে পারফরম্যান্স অনুযায়ী বিভিন্ন মন্ত্রকের সচিব, সরকার অধীনস্থ কমিশনের গুরুত্বপূর্ণ পদ ইত্যাদির দায়িত্বভার সামলাতে থাকেন আইএএস অফিসাররা। এদেশে একজন আইএএস অফিসার সর্বোচ্চ ক্যাবিনেট সচিব হতে পারেন। অর্থাৎ কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার প্রধান সচিবের পদ পর্যন্ত পৌঁছতে পারেন তিনি।

IAS-এর চাকরিতে বেতন কেমন?

বোঝাই যাচ্ছে ভারতবর্ষের সবচেয়ে গ্ল্যামারাস সরকারি চাকরি হল আইএএস অফিসারের চাকরি। স্বাভাবিকভাবেই এর বেতনও বাকিদের থেকে অনেকটা বেশি। চাকরিজীবনের শুরুতেই একজন আইএএস অফিসারের বেসিক পে হয় ৫৬,১০০ টাকা! ডিএ, হাউসিং অ্যালাউন্স, মেডিকেল অ্যালাউন্স সহ আরও নানাবিধ ভাতা জুড়ে তাঁদের মোট বেতন চাকরি জীবনের শুরুতেই লাক্ষাধিক টাকার বেশি হয়ে যায়।

যত দিন যায় পদোন্নতির সঙ্গে সঙ্গে একজন আইএএস অফিসারের বেতন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকে। তাঁদের মোট তিনটে গ্রেড হয়- জুনিয়র, সিনিয়র ও সুপার টাইম স্কেল।

আইএস অফিসারদের সর্বোচ্চ গ্রেট পে হয় ৩ লক্ষ টাকার মতো। অন্যান্য ভাতা ধরে তার মোট পরিমাণ আর‌ও বেশি হয়। এছাড়াও গোটা চাকরি জীবনটাই তাঁরা পদ অনুযায়ী বিভিন্ন স্তরের সরকারি বাংলো বাড়ি পেয়ে থাকেন। সেই সঙ্গে সরকারি গাড়ি, ব্যক্তিগত নিরাপত্তা রক্ষী, বাড়ির কাজের জন্য ঠিকে কর্মচারী, বেশি উঁচু পদে গেলে ব্যক্তিগত সহকারীর মতো অজস্র সুযোগ-সুবিধা পান।

তাই পরিশ্রম থাকলেও কষ্ট করে যদি একবার আইএস অফিসার হয়ে যেতে পারেন, সেক্ষেত্রে আপনার বাকি জীবনটা সুনিশ্চিত।

বিঃদ্র: নতুন কোনো চাকরির আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে যুক্ত হয়ে যান। নিচে যুক্ত (Join) হওয়ার লিংক দেওয়া রয়েছে ঐ লিংকে ক্লিক করলেই যুক্ত হয়ে যেতে পারবেন। ওখানেই সর্বপ্রথম আপডেট দেওয়া হয়। আর আপনি যদি অলরেডি যুক্ত হয়ে থাকেন এটি প্লিজ Ignore করুন। 

Important Links:  👇👇
কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপে জয়েন হোনClick Here
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

🎯 আইপিএস (IPS) অফিসার কিভাবে হওয়া যায়?

🎯 আইএএস (IAS) অফিসার কিভাবে হওয়া যায়?