রাজ্যে অনেক শিক্ষকের চাকরি গেল, শুরু হলো শিক্ষক ছাটাই প্রক্রিয়া- কোন জেলায় কতজন চাকরি হারাল? দেখে নিন

নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় বড় ধাক্কা খেল বেআইনিভাবে নিযুক্ত শিক্ষকরা। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের নির্দেশ প্রয়োগ করতে শুরু করল এস‌এসসি। ফলে চাকরি যেতে শুরু করেছে একের পর এক শিক্ষকের। সূত্রের খবর অভিযুক্তদের শাস্তি পাওয়ার পর্ব শুরু হল, এরপর আর‌ও অনেকের চাকরি যাবে। শুধু আর কিছু সময়ের অপেক্ষা।

The process of illegal dismissal of teachers has started in West Bengal

কেন চাকরি হারাচ্ছেন শিক্ষকরা?

রাজ্যের শিক্ষাক্ষেত্রের ভয়ঙ্কর নিয়োগ দুর্নীতি মামলা নিয়ে গোড়া থেকেই কড়া মনোভাব দেখিয়ে এসেছেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। দুর্গাপুজোর আগে, গত ২১ সেপ্টেম্বর একটি এস‌এসসি মামলার শুনানিতে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় পরিস্কার নির্দেশ দেন, দোষী সব্যস্ত শিক্ষকদের চাকরি থেকে বরখাস্ত করতেই হবে। সেই জায়গায় যোগ্য বঞ্চিতরা চাকরি পাবেন। তিনি নির্দেশ দেন, মামলাকারীদের আইনজীবীর সঙ্গে বসে এস‌এসসি(SSC) কে বেআইনিভাবে নিযুক্ত শিক্ষকদের তালিকা তৈরি করতে হবে। সেই তালিকা ধরে চাকরি কাড়ার প্রক্রিয়া শুরু হবে।

বিচারপতির নির্দেশ পেয়েই এস‌এসসি কর্তারা নিজেদের আইনজীবীকে নিয়ে মামলাটা রীতেশ আইনজীবীর সঙ্গে বৈঠকে বসেন। সেই আলোচনার ভিত্তিতে বেআইনিভাবে নবম-দশমে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের তালিকা তৈরির কাজ শুরু করে এস‌এসসি।

কতজনের তালিকা তৈরি হল, কতজনের চাকরি গেল?

এস‌এসসি সূত্রে খবর আদালতের গাইডলাইন মেনে মামলাকারীদের আইনজীবীর সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে তারা আপাতত ১৮৩ জন বেআইনিভাবে নিযুক্ত শিক্ষকদের তালিকা তৈরি করেছে। এরমধ্যে ২০ জনকে ইতিমধ্যেই চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। এস‌এসসির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বাকিদের‌ও খুব তাড়াতাড়ি চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হবে। সেইসঙ্গে বেআইনি শিক্ষকদের তালিকা তৈরির কাজ চলছে বলেও জানিয়েছে তারা।

কোন কোন জেলা থেকে কত জনের চাকরি গেল?

কাজ হারানো শিক্ষকরা মূলত দুই দিনাজপুর, মালদ‌হ, মুর্শিদাবাদ ও হাওড়া জেলার বলে জানা গিয়েছে। বরখাস্ত হ‌ওয়ার লাইনে থাকা বাকি শিক্ষকদের মধ্যে শুধু দক্ষিণ ২৪ পরগনা তেই আছে ২৯ জন। মালদহে ২৫, দক্ষিণ দিনাজপুর ১৭, উত্তর দিনাজপুরে ১৩, কোচবিহারে ১২, পূর্ব মেদিনীপুরে ১০, জলপাইগুড়ি ৮, কলকাতা ৭, বর্ধমান ৬, বীরভূমে ৫, আলিপুরদুয়ার, পশ্চিম মেদিনীপুর, উত্তর ২৪ পরগনায় ৩ জন করে ও বাঁকুড়ার ২ জন শিক্ষক আছেন।

যদিও এস‌এসসি আন্দোলনকারীদের বক্তব্য, প্রকৃত বেআইনিভাবে নিযুক্ত শিক্ষকদের সংখ্যা এক হাজারের বেশি হবে। তাঁদের দাবি, এস‌এসসি’কে প্রত্যেক বেআইনি শিক্ষককে খুঁজে বের করে তাদের বরখাস্ত করতেই হবে। নাহলে তারা ফের আদালতের দ্বারস্থ হবেন বলে জানিয়েছেন।

👍চাকরি ও কাজের আপডেট মিস না করতে চাইলে আমাদের ‘টেলিগ্রাম চ্যানেলে’যুক্ত হয়ে যান

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

🎯 শুধু টেট পাশেই হবে না চাকরি-কেন? জানুন

🎯 পশ্চিমবঙ্গের খড়গপুরে কর্মী নিয়োগ

🎯 রাজ্যের চিফ মেডিক্যাল অফিসারের অফিসে চাকরি