প্রাইমারি টেট নিয়ে একদিনে ১,৪০০ মামলা দায়ের! প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগের আগে ফের জটিলতা!

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বিতর্কে দাঁড়ি পরার যো নেই। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের নতুন নিয়োগের ঘোষণায় যখন মনে হচ্ছিল এবার সব সমস্যা ধীরে ধীরে মিটতে চলেছে, ঠিক তখনই নতুন বিপত্তি দেখা দিল। পর্ষদের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ফের মামলা দায়ের হল আদালতে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, একদিনেই কলকাতা হাইকোর্টে ১,৪০০ মামলা দায়ের হয়েছে! যা কার্যত নজিরবিহীন।

1,400 Cases Filed in One Day Regarding Primary TET

কী নিয়ে এত মামলা?

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ দুর্গাপুজো শুরু হ‌ওয়ার ঠিক আগে নতুন টেট পরীক্ষার পাশাপাশি প্রাথমিকের নতুন শিক্ষক নিয়োগের কথা ঘোষণা করে। গত ২৯ সেপ্টেম্বর এই নিয়ে বিজ্ঞপ্তি‌ও জারি করে তারা। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি গৌতম পাল সাংবাদিক বৈঠক করে গোটা বিষয়টি জানান। জানা যায় নতুন করে প্রায় ১১ হাজার সহ শিক্ষক নিয়োগ করা হবে রাজ্যের সরকারি ও সরকার পোষিত প্রাথমিক স্কুলগুলোতে

কিন্তু পর্ষদের জারি করা বিজ্ঞপ্তি নিয়েই গোল বেঁধেছে। চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ ওই বিজ্ঞপ্তি চ্যালেঞ্জ করেই কোর্টে গিয়েছেন। পর্ষদ জানিয়েছে, এবারের শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ডিএল‌এড (D.El.Ed) পাশদের পাশাপাশি বিএড (B.Ed) পাশরাও আবেদন করতে পারবেন। মামলাকারী চাকরিপ্রার্থীদের অভিযোগ, পর্ষদের এই সিদ্ধান্ত কেন্দ্রীয় শিক্ষক নিয়োগ নিয়মের পরিপন্থী। প্রাথমিক শিক্ষক পদে বিএড পাশেদের আবেদন করার অধিকার নেই বলে তাঁরা দাবি করেন। এই নিয়েই কলকাতা হাইকোর্টের অবসরকালীন বেঞ্চের দারস্থ হয়েছেন তাঁরা।

প্রাথমিক পর্ষদ যাই করতে যাচ্ছে মামলা হয়ে যাচ্ছে

হাইকোর্টের অবসরকালীন বেঞ্চের বিচারপতি হিরন্ময় ভট্টাচার্যের এজলাসে চাকরিপ্রার্থীদের এই মামলা গৃহীত হয়েছে। তবে প্রাথমিকভাবে এই মামলা নিয়ে কিছুটা বিস্ময় প্রকাশ করেন বিচারপতি। তিনি বলেন, এ মহা মুশকিলের অবস্থাপর্ষদ যাই করতে যাচ্ছে মামলা হয়ে যাচ্ছে। আগামী সোমবার জরুরি ভিত্তিতে কলকাতা হাইকোর্টে এই মামলার শুনানি হবে।

যদি দ্রুত এর নিষ্পত্তি না হয় তবে ২১ অক্টোবর থেকে প্রাথমিকের যে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হবে তা ব্যহত হতে পারে বলে বিশেষজ্ঞ মহলের আশঙ্কা। অনেকেই বলছেন সমস্যা মেটার আগেই নতুন সমস্যা এসে হাজির।

তবে শুধু বিএড-দের নিয়ে নয়, ২০১৪ সালের টেট পালদের ফের আবেদনের সুযোগ দেওয়া নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। পাশাপাশি আন্দোলনকারীদের একাংশ ডিএল‌এডের দ্বিতীয়বর্ষে পাঠরতদের আবেদনের যে সুযোগ দেওয়া হয়েছে তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন। তাঁদের বক্তব্য, গত কয়েকবছর ধরে নিয়োগ হয়নি, ফলে বহু যোগ্য চাকরিপ্রার্থী বসে আছেন। এই সময় পাশ না করাদের আবেদনের সুযোগ দেওয়া ভুল হয়েছে।

👍চাকরি ও কাজের আপডেট মিস না করতে চাইলে আমাদের ‘টেলিগ্রাম চ্যানেলে’যুক্ত হয়ে যান

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇 

🎯 ৩ কোটি টাকা ঘুষ নিয়ে ৪৪ জনকে দেওয়া হয়েছে চাকরি

🎯 টেট পাশ করে থাকলেই দেওয়া হবে চাকরি 

🎯 রাজ্যের জেলার বিভিন্ন ব্লকে আশা কর্মী নিয়োগের নতুন বিজ্ঞপ্তি