ডিএলএড-এর প্রশ্ন ফাঁসের ১ দিনের মধ্যেই কড়া পদক্ষেপ, রাজ্য সরকার নিল এমন পদক্ষেপ!

1/8: ডিএলএডের প্রশ্ন ফাঁস নিয়ে তোলপাড় হচ্ছে রাজ্যের শিক্ষা মহল। টেট পরীক্ষার ঠিক আগে এই ঘটনায় প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অস্বস্তি বাড়িয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে যেমন গাফিলতির অভিযোগ উঠেছে, তেমনই পর্ষদ কর্তাদের যোগ্যতা ও দক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

2/8: ১১ ডিসেম্বরের টেট পরীক্ষার ভবিষ্যৎ নিয়েও দেখা দিয়েছে আশঙ্কার মেঘ। এই অবস্থায় ড্যামেজ কন্ট্রোল করতে আসরে নামতে হয়েছে রাজ্য প্রশাসনকে। ডিএলএডের প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনা ঘটার ১ দিনের মধ্যেই তদন্ত করে দেখার জন্য সিআইডির হাতে দায়িত্ব তুলে দিয়েছে রাজ্য সরকার। 

Strict action within 1 day of DElEd question leak

3/8: গত সোমবার, অর্থাৎ ২৮ ডিসেম্বর প্রাথমিক শিক্ষক প্রশিক্ষণ বা ডিএলএড-এর চূড়ান্ত বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষা শুরু হয়েছে। প্রথম দিনই সেই পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে যায়। বেলা ১২ টায় পরীক্ষা শুরুর কথা থাকলেও প্রায় স‌ওয়া এক ঘন্টা আগে থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়। যদিও প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ ডিএলএড-এর পরীক্ষা বাতিল করেনি। নির্ধারিত সময়সূচি মেনে ১২ টা থেকে দুপুর ২ টো পর্যন্ত পরীক্ষা চলে। কিন্তু প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি নিয়ে পরীক্ষার্থীদের পাশাপাশি আমজনতার মধ্যেও শোরগোল পড়ে যায়।

4/8: বিশেষ করে সামনেই টেট পরীক্ষা থাকায় প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি নিয়ে অনেক বেশি করে প্রশ্ন উঠতে থাকে। টেট পরীক্ষার্থীরা আশঙ্কা প্রকাশ করেন ডিএল‌এড-এর প্রশ্ন ফাঁস আটকাতে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ ব্যর্থ হয়েছে। তাই টেট পরীক্ষাতেও কোনও বিপর্যয় ঘটতে পারে।

5/8: এদিকে ১১ ডিসেম্বরের টেট পরীক্ষাকে বিতর্কমুক্ত ও নিশ্চিন্তে সম্পন্ন করতে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের পাশাপাশি রাজ্য প্রশাসন‌ও ব্যাপক সক্রিয় হয়ে উঠেছে। নিরাপত্তা নিয়ে যেমন ষোল দফা নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে, তেমনই প্রতিটি জেলা ও মহাকুমা স্তরে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। টেটের প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রের আশেপাশে ১৪৪ ধারা জারি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য প্রশাসন।

6/8: কিন্তু ডিএলএড-এর প্রশ্ন ফাঁসের পর অনেকেই বলতে শুরু করেন, এতকিছু ব্যবস্থা নিয়েও কোন‌ও লাভ হবে না। প্রশ্ন ফাঁস হয়ে গেলে সবকিছুই মাঠে মারা যাবে। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি পরীক্ষার্থীদের এই মানসিকতা মোকাবিলা করতেই সময় নষ্ট না করে প্রায় সঙ্গে সঙ্গে ডিএল‌এড-এর প্রশ্ন ফাঁসের তদন্তভার সিআইডির হাতে তুলে দিয়েছে রাজ্য সরকার।

7/8: এর আগে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি গৌতম পাল জানিয়েছিলেন, টেটের প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য তিনি একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করেছেন। কিন্তু ঢাল-তরোয়ালহীন সেই বিশেষজ্ঞ কমিটির ভরসায় না থেকে রাজ্য সরকার সিআইডির হাতে তদন্তভার তুলে দিয়ে অনেক যুক্তিযুক্ত পদক্ষেপ করেছে বলে শিক্ষামহলের একাংশের ধারণা।

8/8: শিক্ষাবিদদের একাংশ বলছেন, টেট পরীক্ষার আগেই যদি ডিএলএড প্রশ্ন ফাঁসের গোটা বিষয়টির সমাধান করে ফেলা সম্ভব হয়, তবে পরীক্ষার্থীদের মনে অনেক আস্থা ফিরে আসবে। এখন দেখার সিআইডি তদন্তে প্রশ্ন ফাঁসের জল শেষ পর্যন্ত কতদূর গড়ায়।

বিঃদ্র: নতুন কোনো চাকরির আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে যুক্ত হয়ে যান। নিচে যুক্ত (Join) হওয়ার লিংক দেওয়া রয়েছে ঐ লিংকে ক্লিক করলেই যুক্ত হয়ে যেতে পারবেন। ওখানেই সর্বপ্রথম আপডেট দেওয়া হয়। আর আপনি যদি অলরেডি যুক্ত হয়ে থাকেন এটি প্লিজ Ignore করুন। 

Important Links:  👇👇
কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপে জয়েন হোনClick Here
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো চাকরির আপডেট 👇👇

🎯 টেটের অ্যাডমিট কার্ডের সমস্যা নিয়ে যা জানাল পর্ষদ

🎯  ৩৫ হাজার টাকা বেতনে রাজ্যে হেলথ মিশনে চাকরি 

🎯 ১ ঘন্টা ১৩ মিনিট আগেই D.El.Ed পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস