SSC নম্বর প্রকাশ করায় মানহানি হয়েছে, আদালতে গেলেন শিক্ষিকা

এসএসসির মাধ্যমে শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী নিয়োগে ব্যাপক দুর্নীতির বিষয়টি বর্তমানে সকলেরই জানা। কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে সিবিআই এই ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে জানায়, ৯৫২ জন চাকরিপ্রার্থী ওএমআর শিট জালিয়াতির সাহায্যে শিক্ষকের চাকরি পেয়েছেন।

এরপরই কলকাতার হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় (Abhijit Gangopadhyay) এসএসসিকে (WBSSC) নির্দেশ দেন, ওই ৯৫২ জন চাকরিপ্রার্থীর ওএমআর শিট প্রকাশ্যে আনতে। বিচারপতির নির্দেশ মত এসএসসি তাদের ওয়েবসাইটে নাম সহ বিতর্কিত ৯৫২ টি ও‌এম‌আর শিট প্রকাশ করে করে দেয়।

ফলে ওএম‌আর শিট জালিয়াতির মাধ্যমে কারা চাকরি পেয়েছে তা সহজেই রাজ্যবাসী জেনে গিয়েছে। সেই নামের তালিকা ধরে বিভিন্ন স্কুল থেকে কলঙ্কিত শিক্ষকদের খুঁজে বের করাও শুরু হয়েছে। কিন্তু এই ঘটনাতেই নিজের মানহানি খুঁজে পেয়েছেন তালিকায় নাম থাকা এক তৃণমূল কাউন্সিলর!

Teacher goes to court for defamation of SSC marks

দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুর রাজপুর পুরসভার ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর কুহেলি ঘোষ ২০১৬ এর এসএসসি পরীক্ষায় বসেছিলেন। পরে চাকরিও পান। তিনি বর্তমানে সোনারপুর চৌহাটি বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা। এর আগে সোনারপুর কোদালিয়া প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা ছিলেন।

হাইস্কুলে চাকরি পেয়ে প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষিকার পদ ছাড়েন। এস‌এসসির প্রকাশ করা তালিকায় দেখা যাচ্ছে, এই কুহেলি ঘোষের এসএসসি পরীক্ষায় যত নম্বর পাওয়ার কথা ছিল তার থেকে অনেকটাই বেশি নম্বর পেয়েছেন। নম্বর বাড়িয়ে দেওয়ার ফলেই তিনি শিক্ষিকার চাকরি পান।

আরো চাকরি: পশ্চিমবঙ্গ বন্ধন ব্যাংকে জেলায় জেলায় নিয়োগ ২০২৩

কুহেলি ঘোষের অভিযোগ কী?

তৃণমূল কাউন্সিলর তথা এসএসসির ওএমআর শিট কেলেঙ্কারির তালিকায় নাম থাকা কুহেলি ঘোষের দাবি, এইভাবে তাঁর নাম প্রকাশ্যে আনায় সম্মানহানি হয়েছে। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমরা যখন পরীক্ষা দিই তখন প্রাপ্ত নম্বর জানানো হয়নি। এমনকি ইন্টারভিউয়ে কত নম্বর পেয়েছি সেটাও অজানা ছিল। আমি কাউকে নম্বর বাড়াতে বলিনি। পরীক্ষকরা কেন বেশি নম্বর দিয়েছেন এটা তাঁরাই বলতে পারবেন। এক্ষেত্রে আমার কোনও দোষ নেই। কিন্তু এখন হঠাৎ করে এইভাবে নাম প্রকাশ করে দেওয়ায় আমার সম্মানহানি হয়েছে।”

কেন তাঁর নাম অনুমতি ছাড়া এসএসসি কর্তৃপক্ষ প্রকাশ্যে আনল সেই নিয়ে প্রশ্ন তুলে কলকাতা হাইকোর্টে পাল্টা মামলা দায়ের করেছেন এই তৃণমূল কাউন্সিলর।

সূত্রের খবর, চলতি সপ্তাহেই কুহেলি ঘোষের দায়ের করা এই মামলার শুনানি হতে পারে কলকাতা হাইকোর্টে। তবে এক্ষেত্রে এসএসসি কর্তৃপক্ষের উপর কতটা দায় বর্তাবে তা নিয়ে সন্দেহ আছে আইনজীবী মহলের। কারণ কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশেই এসএসসি ওএমআর শিট কেলেঙ্কারিতে যাদের নম্বর বেড়েছে তাদের তালিকা প্রকাশ্যে এনেছিল।

আরো আপডেট: ১৫ বছর পর হাইকোর্টের নির্দেশে রাজ্যের সেচ দফতরে চাকরি

বিঃদ্র: নতুন কোনো চাকরি ও কাজের আপডেট মিস করতে না চাইলে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ এবং টেলিগ্রাম চ্যানেলে যুক্ত হয়ে যান। নিচে যুক্ত (Join) হওয়ার লিংক দেওয়া রয়েছে ঐ লিংকে ক্লিক করলেই যুক্ত হয়ে যেতে পারবেন। ওখানেই সর্বপ্রথম আপডেট দেওয়া হয়। আর আপনি যদি অলরেডি যুক্ত হয়ে থাকেন এটি প্লিজ Ignore করুন।  

Important Links:  👇👇
কাজকর্ম WhatsApp গ্রুপে জয়েন হোনClick Here
✅ Telegram ChannelJoin Now

🔥 আরো চাকরির আপডেট- Click Here